স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: ৭৫ বছরের এক বৃদ্ধাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল এলাকারই এক পৌঢ়ের বিরুদ্ধে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে, উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়া থানার অন্তর্গত রামনগর কলোনীতে। এই ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকার স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে।

রবিবার গভীর রাত্রে ঘরের মধ্যে ঐ বৃদ্ধাকে অচৈতন্য এবং রক্তাক্ত অবস্থায় পরে থাকতে দেখেন তাঁর মেয়ে। এরপর বৃদ্ধার মেয়ে এবং প্রতিবেশীদের সাহায্যে তাঁকে সংকটজনক অবস্থায় প্রথমে ভাটপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভরতি করা হয়। পরে তাঁর অবস্থার অবনতি হলে বৃদ্ধাকে বেলঘড়িয়ার এক বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করা হয়। বর্তমানে সেখানেই তার চিকিৎসা চলছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত ঐ ব্যক্তির নাম আশীষ শর্মা(৫০)। তার বাড়ি ঐ একই এলাকাতে। এই ঘটনায় বৃদ্ধার তরফে নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত আশীষ শর্মাকে গ্রেফতার করেছে ভাটপাড়া থানার পুলিশ। যদিও পুলিশি জেরায় অভিযুক্ত তার দোষ স্বীকার করেছে বলে জানা গিয়েছে।

এদিকে ধৃত আশীষের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা। তাঁদের বক্তব্য “আমরা এই ধরনের কোনও ঘটনা একজন ৭৫ বছরের বৃদ্ধার সঙ্গে ঘটতে পারে সেটা ভাবতেই পারছি না। ওই বৃদ্ধা অভিযুক্তকে তাঁর নিজের ছেলের মতো দেখতেন। তাই অভিযুক্ত বৃদ্ধার বাড়িতে যাতায়াত করত সে। কিন্তু এই ধরনের কাজ বৃদ্ধার সঙ্গে ঘটাবে সেটা আমাদের ধারনার বাইরে। এই ঘটনায় আমরা হতবাক হয়ে গিয়েছি। তবে এই ঘটনায় অভিযুক্তের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি করছি।”

জানা গিয়েছে, অনেকদিন ধরেই ভাটপাড়া থানার রামনগর কলোনির বাসিন্দা আশিষ শর্মার যাতায়াত ছিল প্রতিবেশিনী ওই বৃদ্ধার বাড়িতে। ওই বৃদ্ধাকে সে কাকিমা বলেই ডাকত। ফলে বৃদ্ধার বাড়িতে আশীষের নিয়মিত যাওয়া আসা ছিল বলে কেউ তাকে সন্দেহ করত না। কিন্ত, বৃদ্ধার সঙ্গে যে এমন ধর্ষণের ঘটনা ঘটবে তা কল্পনাও করতে পারেনি কেউই। গোটা ঘটনায় হতবাক রামনগর কলোনী এলাকার বাসিন্দারা।