পৈলান: কী অদ্ভুত! খোদ বিধায়কই জানেন না তাঁর এলাকার উন্নয়নের কথা৷ জানেন না দীর্ঘদিনের সমস্যার সমাধানটা হয়েই গিয়েছে৷ আবার সেই সমাধান হয়ে যাওয়া সমস্যাটাই ফের সমাধান করার জন্য প্রকাশ্যে সবার সামনে বললেন মুখ্যমন্ত্রীকে৷ পৈলানে মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক বৈঠকে হাসির খোরাক ‘নেত্রী’ বিধায়ক দেবশ্রী রায়৷

শুক্রবার পৈলানে দক্ষিণ ২৪ পরগণার প্রশাসনিক বৈঠক চলছে৷ একের পর এক বিধায়কদের অভাব-অভিযোগ শুনছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ একসময় নম্বর এল রায়দিঘির বিধায়ক দেবশ্রী রায়ের৷ দিদির কাছে তাঁর আবদার রায়দিঘি হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগ ও ইউএসজি বিভাগ চালু করতে হবে৷ দলীয় বিধায়কের এই আবদার শুনে হেসে ফেললেন মুখ্যমন্ত্রী৷বললেন, আজই তো এই দুটো বিভাগের উদ্বোধন হল৷ মুখ্যমন্ত্রীর মুখ থেকে একথা শুনেই চরম অস্বস্তিতে পরে যান দেবশ্রী রায়৷ হাসির হাওয়া ছড়িয়ে পরে গোটা হলে৷

অস্বত্বি থেকে বাঁচতে এরপর নতুন একটি প্রশ্ন করেন দেবশ্রী রায়৷ এরপরই দেবশ্রীকে তাঁর বিধানসভা এলাকা নিয়ে প্রশ্ন করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ কিন্তু প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার সময় তাঁর শরীরি ভাষায় যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসের অভাব ছিল৷ যা ম্যানেজ করেছেন কলকাতার মেয়র তথা দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার তৃণমূলের সভাপতি শোভন চট্টোপাধ্যায়৷ দেবশ্রী যাতে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে বেকায়দায় না পরেন তাই তাড়াতাড়ি করে তিনিই উত্তর দিয়ে দিয়েছেন৷ এই বিষয়টা একেবারেই নজর এড়ায়নি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ তিনি প্রকাশ্যেই রসিকতা করে জানতে চান, দেবশ্রীর উত্তর কানন দিচ্ছে কেন?

প্রথমেই ভুল প্রশ্ন তারপর তাকে বাঁচাতে শোভনের অহেতুক নাক গলানো মমতার পাশাপাশি কৌতুহলী করেছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বকেও৷ স্থানীয় বিধায়কের এই হাল দেখে মুচকি হাসছেন রায়দিঘির তৃণমূল নেতাদের একাংশ৷