স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: নিপা ভাইরাসের আতঙ্ক কাটাতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি বৈঠক হয়৷ সেখানে জেলাশাসক কৌশিক ভট্টাচার্য্য আম চাষিদের কথা ভেবে বলেন, দুশ্চিন্তার কোনও কারণ নেই৷ কেননা মালদহে নিপা ভাইরাসের কোনও অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি৷

জেলায় নেই কোনও কোয়ালিটি টেস্টিং ইউনিট৷ যার ফলে সরাসরি মালদহের আম বিদেশের বাজারে যেতে পারছে না৷ এই সমস্যার মধ্যে নতুন করে নিপা ভাইরাসের প্রভাব পরেছে মালদহের আমের বাজারে৷ বিদেশে রপ্তানি বন্ধের পাশাপাশি দেশীয় বাজারেও আমের চাহিদা নেই৷

আরও পড়ুন: বুম্বাদার নতুন লুকে কুপোকাত টলিপাড়া

ফলে দুর্ভোগে পড়ছে মালদহ জেলার আম চাষিরা৷ এই বিভ্রান্তি দূর করতে মালদহর জেলাশাসককের দ্বারস্থ হয়েছিলেন জেলার দুই সাংসদ মৌসম বেনজির নুর ও আবু হাসেম খান চৌধুরী৷ তাঁদের কথা শুনে ও আম চাষিদের কথা ভেবে বুধবার জেলাশাসক কৌশিক ভট্টাচার্য্য, প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরীর উপস্থিতিতে এক জরুরি বৈঠক করে জেলা প্রশাসন৷

১৯ জুন আগামি মঙ্গলবার জামাইষষ্ঠী৷ তার আগে আমের বাজার রমরমা থাকে৷ কিন্তু এবছর আমের বাজারে নিপা ভাইরাসের আতঙ্কে নেই ক্রেতা৷ তাই মালদহের আম চাষিদের মাথায় হাত৷ বাগানের আম বাগানেই বাক্সবন্দী হয়ে থাকছে৷

আরও পড়ুন: নক্ষত্রখচিত মঞ্চে পলি উমরিগড় সম্মান বিরাটের

এই রাজ্য তথা রাজ্যের বাইরের বিভিন্ন জায়গা থেকে এই সময় আম কিনতে প্রচুর মানুষ আসেন৷ কিন্তু নিপা ভাইরাসের আতঙ্কে ক্রেতাদের দেখা পাওয়া যাচ্ছে না৷ বাগানের পাকা আম মাটিতেই পড়ে নষ্ট হচ্ছে৷ লক্ষ লক্ষ টাকা ঋণ নিয়ে আম চাষিরা আম গাছ লাগায়৷

সেই টাকা এবছর আর উঠবে না বলে মনে করছেন আম চাষিরা৷ আমচাষিদের কথা জানতে পেরে জেলা প্রশাসন বুধবার এক প্রশাসনিক বৈঠক করেন৷ পাশাপাশি লিচুরও একই অবস্থা৷

বৈঠকে জেলাশাসক কৌশিক ভট্টাচার্য্য বলেন, ‘‘আমাদের জেলায় নিপা ভাইরাসের কোনো অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি৷ মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন৷ আর গুজব ছড়ানোর কারণে আম খাচ্ছেন না তাঁরা৷ এই জেলা তথা গোটা রাজ্যের মানুষের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন নির্ভয়ে আম খান৷ কোনও ক্ষতি হবে না৷ কোনও রকম গুজবে কান দেবেন না৷ আর পাশাপাশি কোনও গুজব ছড়াবেন না৷’’

আরও পড়ুন: বিজেপিতে যোগদান করলেন তৃণমূলের তিন সভাপতি

প্রশাসনের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হয় প্রতিটি ব্লকে এই নিপা ভাইরাসের আতঙ্কের যে গুজব রটেছে৷ তার বিরুদ্ধে প্রচার চালানো হবে৷ মালদহ মার্চেন্ট চেম্বারের সম্পাদক উজ্জ্বল সাহা বলেছেন, নিপা ভাইরাসের গুজবে কান দেবেন না৷ নির্ভয়ে আম খান৷ যারা এই গুজব ছড়াচ্ছে প্রশাসন কঠোরভাবে তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে৷’’

অন্যদিকে প্রাপ্ত খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ দফতরের মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী জানিয়েছেন, এই গুজবের কীভাবে মোকাবিলা করা যায় সে বিষয়ে ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানানো হয়েছে৷ তিনি নির্দেশ দিয়েছেন এই গুজবের মোকাবিলা করতে হবে৷ কারণ এই জেলা তথা এই রাজ্যের অর্থনীতি আমের উপরে অনেকটাই নির্ভরশীল৷ সুতরাং এর বিরুদ্ধে সকলকে একসঙ্গে লড়াই করতে হবে৷

আরও পড়ুন: অমিত শাহর উপস্থিতিতেই বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন মমতার প্রাক্তন মন্ত্রী