স্টাফ রিপোর্টার, বারাসত: দীর্ঘ দিনের সম্পর্ক ভেঙে বাবা-মায়ের পছন্দমত সরকারি চাকরিজীবী পাত্রকে বিয়ে করেছে প্রেমিকা। এমন খবর প্রায়ই শোনা যায়। এই ঘটনা নতুন কিছু নয়।

এমনকি বহু বছরের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ায়, হারানো ভালোবাসা ফিরে পেতে প্রেমিকার বাড়ি ধর্নায় বসতেও দেখা গিয়েছে অনেক প্রেমিককে। কিন্তু এমন ঘটনা কখনও শুনেছেন? পাত্রী সরকারি চাকুরে বলে খোদ আট বছরের সম্পর্ক ভেঙে, টোপর মাথায় দিয়ে চাকরিওয়ালা পাত্রীকে বিয়ে করতে ছাদনা তলায় হাজির প্রতারক পাত্র!

এমনটাই ঘটেছে, উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগর থানার কচুয়া এলাকায়। যদিও শেষ পর্যন্ত পুলিশ ডেকে বিয়ে ভেস্তে দিয়েছে প্রতারিত প্রেমিকা। বর্তমানে অভিযুক্ত যুবককে আটক করেছে অশোকনগর থানার পুলিশ।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত ওই যুবকের নাম প্রতিম সরকার। পুলিশ জানান, অভিযুক্ত যুবকের সঙ্গে দীর্ঘ আট বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল অশোকনগর এলাকার এক বছর পঁচিশের তরুণীর। শুধু তাই নয়, দীর্ঘদিনের সম্পর্কের সুবাদে বিভিন্ন জায়গায় তাঁদের একাধিক ঘনিষ্ঠ ছবিও ছিল। কিন্তু প্রেমিক যে তাঁকে ভুলে অন্য মেয়েকে বিয়ে করতে যাচ্ছে তা ঘুণাক্ষরেও টের পেতে দেয়নি অভিযুক্ত।

জানা গিয়েছে, কচুয়া লেকপার এলাকার শিক্ষিকার সঙ্গে বুধবার বিয়ের কথা ছিল প্রতিমের। সে মতোই দুই বাড়িতেই সমস্ত আয়োজন করা হয়েছিল । বিয়ে উপলক্ষ্যে এলাকাতেও একটি বিয়ে বাড়ি ভাড়া নিয়ে এই বিয়ের অনুষ্ঠান হওয়ার কথা ছিল। তবে ঘটনার পর এখন অভিযোগকারিণী ছাড়াও দুপক্ষই অশোকনগর থানায়। প্রতারিত হওয়া অশোকনগরের বছর পঁচিশের মেয়েটি বর্তমানে তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী বলে জানা গিয়েছে। ওই তরুণী পুলিশকে জানিয়েছে, এই ঘটনায় অভিযুক্তের যেন চরম শাস্তি হয়। যদিও এই বিষয়ে কনে পক্ষের তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।