স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: বিশ্ব মৎস্য দিবস উপলক্ষে উত্তর ২৪ পরগনার বারাকপুর মৎস্য গবেষণা কেন্দ্রের পক্ষ থেকে রাজ্যের বিভিন্ন জেলার মৎস্যজীবীদের নিয়ে এক বিশেষ কর্মশালার আয়োজন করা হয়৷ অনুষ্ঠানটি সম্পন্ন হয় বারাকপুর মৎস্য গবেষণা কেন্দ্রে।

এদিন এই মৎস্য গবেষণা কেন্দ্রের পক্ষ থেকে মৎস্যজীবীদের সুবিধার্থে এবং গঙ্গা দূষণ প্রতিরোধ করতে দেড় লক্ষ মাছের চারা গঙ্গায় ছাড়া হল। মাছের চারাগুলির মধ্যে ৭০ শতাংশ রুই মাছের চারা, ২০ শতাংশ কাতলা মাছের চারা এবং ১০ শতাংশ মৃগেল মাছের চারা রয়েছে। মৎস্য বিজ্ঞানীদের গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে গঙ্গায় জলজ প্রাণী বা মাছের সংখ্যা বৃদ্ধি পেলে তবেই গঙ্গা দূষণ অনেকাংশে কমবে।

আরও পড়ুন : বৈশাখী নয়,অন্য কারন আছে: বিস্ফোরক সুজন

সেই কারণেই মৎস্য গবেষণা কেন্দ্রের পক্ষ থেকে এদিন গঙ্গায় মাছের চারা ছাড়া হয়। চলতি বছরে শুধুমাত্র বারাকপুর গঙ্গায় এর আগেও আরও আড়াই লক্ষ মাছের চারা ছাড়া হয়েছিল। এই বছর এখনকার গঙ্গায় মোট ৪ লক্ষ মাছের চারা ছাড়া হল। গোটা দেশে চলতি বছরে গঙ্গায় ১২ লক্ষ মাছের চারা ছাড়া হয়েছে। বারাকপুর মৎস্য গবেষণা কেন্দ্রের অধ্যক্ষ ড: বি.কে দাস বলেন, ‘‘সারা পৃথিবী জুড়ে এই দিন বিশ্ব মৎস্য দিবস পালন করা হচ্ছে। সেই কারণেই মঙ্গলবার বারাকপুর মৎস্য গবেষণা কেন্দ্রের পক্ষ থেকে এই দিনটি একটু অন্যরকম ভাবেই পালন করা হল।

একদিকে যেমন গঙ্গায় চারা মাছ ছাড়া হল মাছের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষে, অন্যদিকে তেমনি রাজ্যের বিভিন্ন জেলার মৎস্যজীবীদের নিয়ে এদিন বিশেষ কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে। কিভাবে মাছের উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি করা যায় তা নিয়ে এদিনের কর্মশালায় আলোচনা হয়েছে৷’’