নয়াদিল্লি: শপথগ্রহণ শেষ৷ মন্ত্রক বন্টনের পালাও শেষ৷ এবার দায়িত্ব বুঝে নেওয়ার সময়৷ পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করার সময়৷ সেই লক্ষ্যেই বৈঠকে বসতে চলেছে দ্বিতীয় মোদী সরকারের প্রথম মন্ত্রিসভা৷ শুক্রবার বিকেল পাঁচটায় নতুন মন্ত্রীদের নিয়ে বৈঠকে বসবে ক্যাবিনেট৷ যার নেতৃত্ব থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷

বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন ৫৭ জন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী৷ বৃহস্পতিবারই ট্যুইট করে প্রত্যেক দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ ট্যুইটে তিনি লেখেন যারা এদিন শপথ নিলেন, তাঁদের প্রত্যেককে অভিনন্দন৷ এই ক্যাবিনেট অভিজ্ঞতা ও তারুণ্যের মিশেল৷ ভারতকে আরও অগ্রগতির পথে এগিয়ে নিয়ে যাবে এই ক্যাবিনেট, আশা রাখি৷

এদিকে বৃহস্পতিবার মন্ত্রীরা শপথ গ্রহণ করেন। শুক্রবার সকালেই ঘোষণা হল কাকে কোন মন্ত্রকের দায়িত্ব দেওয়া হবে। তালিকা অনুযায়ী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক পেলেন অমিত শাহ। আগের সরকারে এই মন্ত্রক ছিল রাজনাথ সিংয়ের হাতে। রাজনাথ সিং-কে দেওয়া হয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের দায়িত্ব।

আরও পড়ুন : ৩০ বছরের রাজনৈতিক জীবন পেরিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হলেন দেবশ্রী

প্রথম মোদী সরকারে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী হন নির্মলা সীতারামণ। এবার তাঁকে দেওয়া হল অর্থমন্ত্রকের দায়িত্ব। আগের সরকারে অর্থমন্ত্রী থাকা অরুণ জেটলি এবার আর নেই মোদীর মন্ত্রিসভায়। অসুস্থতার কারণে সরকার থেকে সরে গিয়েছেন তিনি নিজেই।

এবার মন্ত্রিসভায় নেই সুষমা স্বরাজও। গত পাঁচ বছর বিদেশমন্ত্রকের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব সামলেছেন তিনি। এবার সেই দায়িত্ব দেওয়া হল এস জয়শঙ্করকে। একসময় বিদেশ সচিব থাকা জয়শঙ্করকেই স্বাভাবিকভাবেই এই মন্ত্রকের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে।

দুটি মন্ত্রক থাকছে স্মৃতি ইরানির হাতে। নারী ও শিশুকল্যান এবং বস্ত্র মন্ত্রক দেওয়া হয়েছে স্মৃতি ইরানিকে। এর আগে বস্ত্র মন্ত্রকের দায়িত্ব সালমেছেন তিনি। আর নারী ও শিশুকল্যান মন্ত্রকের দায়িত্বে ছিলেন মানেকা গান্ধী। তিনি এবার মন্ত্রিসভায় নেই।

আগের মতই সড়ক পরিবহন মন্ত্রকের দায়িত্ব পাচ্ছেন নীতিন গদকড়ি। সঙ্গে পেলেন ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প মন্ত্রক। পেশায় চিকিৎসক ড. হর্ষবর্ধনকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে তিনটি মন্ত্রকের দায়িত্ব পাচ্ছেন তিনি। স্বাস্থ্যের সঙ্গে রয়েছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এবং আর্থ সায়েন্স।

আরও পড়ুন : বাংলার এই দুই রাষ্ট্রমন্ত্রীর কাঁধে রইল যে দায়িত্ব

সংখ্যালঘু উন্নয়ন মন্ত্রক দেখবেন মোদী সরকারের একমাত্র সংখ্যালঘু মন্ত্রী মুক্তার আব্বাস নকভি। আর ধর্মেন্দ্র প্রধানকে ফের দেওয়া হল পেট্রোলিয়াম মন্ত্রক। আগেই এই মন্ত্রক সামলেছেন তিনি। সঙ্গে রয়েছে স্টিলও। এছাড়া রাসায়নিক ও সার মন্ত্রী হচ্ছেন সদানন্দ গৌড়া, ক্রেতাসুরক্ষা মন্ত্রীর দায়িত্ব পাচ্ছেন রাম বিলাস পাসোয়ান।

তিনটি মন্ত্রক পাচ্ছেন নরেন্দ্র সিং তোমর। তাঁর হাতে থাকছে কৃষি ও কৃষক উন্নয়ন, গ্রামোন্নয়ন এবং পঞ্চায়েত রাজ। আইনমন্ত্রী হলেন রবিশঙ্কর প্রসাদ। সঙ্গে থাকবে তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রক এবং যোগাযোগ (মিনিস্ট্রি অফ কমিউনিকেশন)। মোদী সরকারের আর এক মহিলা মন্ত্রী হরসিমরত কাউর বাদলকে দেওয়া হয়েছে খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ মন্ত্রক।