লন্ডন: বাসে-ট্রেনে-রাস্তায় কোথাওই নিরাপদ নয় মহিলারা৷ এই কথাটি আরও একবার প্রমাণিত হল৷ সতেরো বছর বয়সী এক যুবতীকে একাধিক অশ্লীল মেসেজের সম্মুখীন হতে হয়৷ ঘটনাটি ঘটেছে প্লাইমাউথের ড্রেক সারকাস শপিং মলে৷

তারা ওয়াটারফিল্ড নামের এক যুবতী তার মায়ের সঙ্গে একটি শপিং মলে যায়৷ তার ফোনে কিছু যান্ত্রিক গোলোযোগ ঠিক করানোর জন্য৷ সেখানেই ওই  মোবাইল স্টোরের এক কর্মচারী তার দিকে তাকিয়ে ছিল।  শুধু তাকিয়ে থাকা নয়, বারবার এই যুবতিকে দেখে হাসছিলও৷ প্রথমে তারা এই বিষয়টিকে বন্ধুত্বের মতন করে দেখলেও পরে বিষয়টি তার কাছে অস্বস্তিকর হয়ে ওঠে৷

এরপর কাজ শেষ হয়ে গেলে সে দোকান থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পরই তার ফোনে অশ্লীল সমস্ত মেসেজ আসতে থাকে৷ আসতে থাকা একের পর এইক মেসেজের প্রত্যেকটিতে রয়েছে যৌন ইঙ্গিত! যেমনটা she was ‘f***ing gorgeous’… প্রথমে এহেন মেসেজ দেখে কিছুটা বিব্রত হয়ে পড়েন ওই যুবতী।  কোথা থেকে আসছে এই সমস্ত নোংরা ম্যাসেজ।  দোকানদারের কথাটা প্রথমে মাথায় না আসলেও পরে পুরো বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যায়।  পরে দোকানের লোকটিকে সে চেপে ধরলে স্বীকার করে যে সেই দোকানেরই কর্মচারী৷ কোম্পানীর নথিপত্র ঘেঁটে সে তারার ফোন নম্বর যোগাড় করে৷ এই বিষয়টির বিরুদ্ধে থানায় তারার বাবা একটি অভিযোগ দায়ের করেন৷ তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ৷