প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: হরিদেবপুরে মহিলার দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য৷ ঘটনার তদন্তে নেমেছে হরিদেবপুর থানার পুলিশ৷

ঘটনাটি ঘটেছে হরিদেবপুরের করুণাময়ী ঘাট রোডে৷ ভোর রাতে সেখানকার একটি বাড়িতে আগুন লাগার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় দমকল৷ তারা গিয়ে দেখেন ঘরের মধ্যে পড়ে আছে একজন মহিলার অগ্নিদগ্ধ দেহ৷ খবর দেওয়া হয় হরিদেবপুর থানায়৷ পুলিশ এসে মহিলার দেহ উদ্ধার করে এম আর বাঙুর হাসপাতালে পাঠায়৷ চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন৷

পুলিশ সূত্রে খবর,হরিদেবপুরের একটি ঘর থেকে উদ্ধার হওয়া মহিলার নাম শিপ্রা দে৷ বয়স ৩৮ বছর৷ তিনি একাই ওই বাড়িতে থাকতেন৷ কিভাবে শিপ্রা দে অগ্নিদগ্ধ হল তার তদন্তে নেমেছে পুলিশ৷ নিজেই গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন,না মৃত্যুর পেছনে অন্য কেউ রয়েছেন? পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, তিনি আত্মহত্যাই করেছেন৷ তবে ঘর থেকে কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি৷ যদিও কিভাবে মৃত্যু তা জানা যাবে ময়নাতদন্তের পরই৷

একাকীত্ব থেকেই কি মৃত্যু?কারণ শিপ্রা দেবী একাই থাকতেন বাড়িতে৷ বিশেষজ্ঞদের মতে, জীবনের গতি এতটাই বেড়ে গিয়েছে যে তাল মেলাতে হিমশিম খাচ্ছেন বহু মানুষ৷ বিনা যুদ্ধে কেউ কাউকে জায়গা ছাড়তে চাইছেন না৷ অথচ, এগিয়ে যেতে হবে সকলকে৷ আর, এই যুদ্ধে একটু একটু করে যেন পিছিয়ে পড়ছে জীবন!

যার জেরেও বাঁচার আনন্দকে অবসাদ গ্রাস করছে বলে মনে করেন অনেক বিশেষজ্ঞ৷ যেমন, নিঃসঙ্গ অবস্থায় থাকতে থাকতে ক্রমে অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়ে এক বৃদ্ধ৷ এবং, যার জেরে গত বছর শেষ পর্যন্ত আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে বাধ্য হয়েছিলেন বাঁশদ্রোণী এলাকার ৭৯ বছর বয়সি অনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়৷