স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সল্টলেকের বি জে ব্লকে ২৫ মিনিট থাকবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির রাজ্য সভাপতি অমিত শাহ। মঙ্গলবার কলকাতায় আসবেন অমিত। সল্টলেকে পুজো উদ্বোধন করা ছাড়াও তিনি নেতাজি ইনডোরে NRC নিয়ে বক্তব্য রাখবেন। সেখানেই একটি অন্তর্দলীও সভা করবেন অমিত। নেতাজি ইনডোরে সভা করে তবে সল্টলেকে আসবেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী।

শহরে অমিত শাহ’র দূর্গা পুজো উদ্বোধন নিয়ে রাজ্য বিজেপি এবং কেন্দ্রীয় পার্টির মতবিরোধ চরমে উঠেছিল। রাজ্য পার্টি যেখানে চাইছে দলের সর্বভারতীয় সভাপতি তথা দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ১টি পুজো উদ্বোধন করুক কলকাতায়, অন্যদিকে অমিত শাহ’র অফিস চেয়েছিল মন্ত্রী ৫-৬ টি পুজোর উদ্বোধন করুন। মঙ্গলবার অমিত শাহ কলকাতায় আসবেন। থাকবেন। বুধবার ফিরে যাবেন। বি জে ব্লকে ছাপা হয়ে গিয়েছে আমন্ত্রণ পত্র। যেখানে উদ্বোধক হিসেবে নাম রয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের। আর তা নিয়েই পুজো কমিটির মধ্যে দ্বন্দ্ব।

যদিও আমন্ত্রণ পত্রে বিধান নগরের বিধায়ক সুজিয় বসু, মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী, বিধাননগরের প্রাক্তন চেয়ারম্যান বিশ্ব জীবন মজুমদারের নাম আছে। কিন্তু, বিধায়ক এবং মেয়রের থাকা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে মুকুল রায় বলেছেন, অমিত শাহ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী। এই বিতর্ক ট্যাকা উচিত নয়। শুধুই পুজো উদ্বোধন নয়, একটি সভায় NRC এবং নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বা সিটিজেনশিপ আমেন্ডমেন্ট এক্ট (CAB) নিয়ে বক্তব্য রাখবেন অমিত। রাজ্য বিজেপি সূত্রে খবর, “অমিত শাহ’র টিমের অনেকে বলছেন, একটি পুজো উদ্বোধন করে কি হবে, ৫-৬ যা করা হোক। ভির নিয়ে চিন্তা নেই। অমিত জি শুধু নমস্তে করে চলে আসবে।

কিন্তু, রাজ্য বিজেপির নেতারা জবাব দিয়েছেন, কলকাতার ভিড় সামলান মুশকিল। এত কম সময়ে ৫-৬টি পুজো উদ্বোধন অবাস্তব। রাজ্য বিজেপির অনেকেই মনে করছেন, ঝুঁকি নিয়ে ৫-৬ টি পুজো উদ্বোধন করতে গিয়ে কলকাতার রাস্তায় জনসমুদ্রে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে গেল দায় বিজেপিকে নিতে হবে। বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার মতো একই ধরনের ঘটনা তৃণমূল ঘটাতে পারে।

দায় চাপিয়ে দেওয়া হতে পারে পার্টির উপর। বিজে ব্লকের পুজো কমিটির সভাপতি উমাশঙ্কর ঘোষ দস্তিদার রাজ্য বিজেপি নেতা। তিনি জানান, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ২৫ মিনিট থাকেন। একটি মঞ্চে পুজো কমিটি তাঁকে অভ্যর্থনা জানাবেন। একটি স্মারক এবং উত্তরীয় দেওয়া হবে। তারপর তিনি মন্ডপে দিয়ে ফিতে কেটে ঢুকবেন। তারপর, প্রদীপ জ্বালিয়ে উদ্বোধন করবেন তিনি।