কলকাতা: আইপিএল চলাকালীন শহরে বেটিং চক্রের পর্দাফাঁস৷ কলকাতা পুলিশের গুন্ডা দমন শাখার হাতে গ্রেফতার বেটিংচক্রের ৯ পাণ্ডা৷ উদ্ধার হয়েছে লক্ষাধিক টাকাসহ দামি জিনিস৷ ধৃতদের ব্যাঙ্কশাল আদালতে তোলা হবে৷

বৃহস্পতিবার আইপিএলে পাঞ্জাব-বেঙ্গালুরুর ম্যাচ চলছিল৷ সেই পুলিশের কাছে গোপন সূত্রে খবর আসে, কলকাতার বিভিন্ন জায়গায় বেটিংচক্র চলছে৷ এই খবর পেয়ে কলকাতা পুলিশের গুন্ডা দমন শাখা কলকাতা ও সল্টলেক সেক্টর ফাইভে হানা দেয়৷

পুলিশের দাবি, তল্লাশি চালিয়ে বেটিংচক্রের ৯ জন পাণ্ডাকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ তাদের কাছ থেকে নগদ দেড় লক্ষ টাকা, ১৭টি মোবাইল ফোন, ১৪টি ল্যাপটপ, ৩টি টিভি ও ১টি গাড়ি উদ্ধার করা হয়েছে৷ এরপরই পুলিশ হেয়ার স্ট্রীট, পার্কস্ট্রীট, বড়তলা ও যাদবপুর থানায় ৪টি মামলা রুজু করেছে৷ পাশাপাশি পুলিশ ধৃতদের জিঞ্জাসাবাদ করে জানার চেষ্টা করবে বেটিং চক্রের সঙ্গে আর কারা জড়িত আছে৷

এর আগে বিশ্বকাপ ক্রিকেট শুরু হতেই সক্রিয় হয়ে উঠেছিল বেটিং চক্র৷ সেই সময় ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচ চলাকালীন পুলিশ অভিযান চালিয়ে মধ্য কলকাতা থেকে দুই জনকে গ্রেফতার করেছিল৷

গ্রেফতার করে কলকাতা গোয়েন্দা পুলিশের গুন্ডাদমন শাখার পুলিশ৷ ধৃত রবীন্দ্রকুমার পতোদিয়া ও নীরজ জৈন লেকটাউনের বাসিন্দা৷ তাদের কাছ থেকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল পাঁচটি মোবাইল, দু’টি কম্পিউটার ও দু’টি টিভি সেট৷ এবং নগদ ৮২ হাজার টাকা।

এবার আইপিএল বেটিং চক্রের বাকিদের খোঁজ করতে চাইবে পুলিশ৷ কারণ এর পিছনে বেটিংয়ের বড়সড় চক্র কাজ করছে বলে পুলিশের অনুমান।

অনদিকে বৃহস্পতিবার দুবাইয়ে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বিপক্ষে যে ইনিংসটা কেএল রাহুল খেললেন সেটা দেখার জন্য হয়তো মরুশহরের বুকে মাইলের পর মাইল পথ হাঁটা যায়। কিন্তু কোভিড পরিমন্ডলে সে উপায় নেই।

সবমিলিয়ে দর্শকহীন পরিমন্ডলেই আমিরশাহীতে ত্রয়োদশ আইপিএলের প্রথম শতরানটি এল কিংস ইলেভেন পঞ্জাব অধিনায়ক কেএল রাহুলের ব্যাট থেকে।রাহুলের ব্যাটিং ঝড়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব ৩ উইকেট হারিয়ে এদিন পৌঁছে যায় ২০৬ রানে। শেষ ৪ ওভারে পঞ্জাব এদিন ৭৪ রান যোগ করে স্কোরবোর্ডে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।