নিবেদিতা দে, কলকাতা: বাংলার লোক শিল্পের প্রসারে রাজ্যের নয়া উদ্যোগে উপকৃত প্রায় ৮৫ হাজার লোকশিল্পী৷ দিন দিন হারিয়ে যেতে বসেছিল বাংলার এই গৌরব৷

সেই গৌরব পুনরুদ্ধারের লক্ষ্যেই এবার কাজ শুরু করেছে রাজ্যের তথ্য সংস্কৃতি ও পর্যটন দফতর৷ এই প্রকল্পের অধীনে লোকশিল্পীরা প্রতি মাসে হাজার টাকা করে সাম্মানিক পাচ্ছেন৷ পাশাপাশি বিভিন্ন টুরিস্ট লজগুলিতে লোকশিল্পীদের দিয়ে অনুষ্ঠান করানোরও পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার৷ এতে রাজ্যে পর্যটনের ক্ষেত্র যেমন প্রসারিত হবে, অন্যদিকে কাজের সুযোগ পাবে বাংলার লোকশিল্পীরাও৷

শুধু লোকশিল্পই নয়, বাংলার হস্তশিল্পীদের জন্যও ভেবেছে রাজ্য সরকার৷ নতুন এই প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষে একসঙ্গে কাজ শুরু করেছে রাজ্যের তথ্য সংস্কৃতি ও পর্যটন দফতর৷ রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় যেসব ট্যুরিস্ট লজ রয়েছে সেখানে লোকশিল্পীদের দিয়ে অনুষ্ঠান করানোর পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের৷ প্রতি অনুষ্ঠান বাবদ শিল্পীদের দেওয়া হবে ১০০০ টাকা৷ পাশাপাশি সেই সব ট্যুরিস্ট লজগুলিতে পাকাপাকিভাবে থাকবে কিছু স্টল৷ যেখানে জেলার হস্তশিল্পীরা নিজেদের হাতের কাজের সম্ভার দেখানোর সুযোগ পাবেন৷

এই প্রকল্পের বাস্তবায়ন হলে যেমন উপকৃত হবে দেশের শিল্পী সমাজ, তেমনই প্রসার ঘটবে পর্যটনেরও৷ ট্যুরিস্ট লজগুলিতে লোকশিল্পীদের দিয়ে এই ধরণের অনুষ্ঠানের করানো গেলে সঙ্গীতের টানে সেখানে পর্যটকের আনাগোনা বাড়বে বলেই আশা সরকরের৷

সেক্ষেত্রে রাজ্যের পর্যটন শিল্প কিছুটা হলেও উন্নতির মুখ দেখবে৷ রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব জানিয়েছেন, ‘‘পর্যটন ও সঙ্গীতকে একসুতোয় বাঁধতেই এই চিন্তাধারা৷ এতে বিশ্ববাংলার ব্র্যান্ডিং হবে৷ আগামী দুর্গা পুজোতেই এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করার জন্য কাজ শুরু হয়েছে৷’’

সূত্রের খবর, প্রতি মাসে শিল্পীদের দিয়ে চারটি করে অনুষ্ঠান করানো হবে৷ পুরুলিয়ার ছৌ শিল্পীরা কখনোও যাবেন ডুয়ার্সে৷ কখনো ডুয়ার্সের শিল্পীরা তাদের শিল্প সম্ভার দেখাবেন বাঁকুড়ায়৷ এইভাবেই মিলেমিশে একাকার হয়ে যাবে জেলার শিল্পীরা৷