আবুজা: যে কোনও সন্ত্রাসদীর্ণ ও যুদ্ধকবলিত দেশের মতো নাইজেরিয়াতেও এখন সব চাইতে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে শৈশব। ইউনিসেফের এক সদ্য-প্রকাশিত রিপোর্টে জানা গিয়েছে, আফ্রিকার এই দেশে প্রায় আট লক্ষ শিশুকে তুলে নিয়ে গিয়েছে আইএস অনুগামী কট্টরপন্থী মুসলিম সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী বোকো হারাম। এই আট লক্ষ শিশুর মধ্যে একজনের হাতে আঁকা ছবি পেয়েছে ইউনিসেফ। যেখানে দেখা যাচ্ছে, ট্যাঙ্ক যুদ্ধ চলছে, মুণ্ডচ্ছেদ করা হচ্ছে মানুষের। এমন একটি ছবিই নাকি মিলেছে বোকো হারাম নিয়ে প্রকাশ-পাওয়া ইউনিসেফের ওই রিপোর্টে। একইসঙ্গে ওই রিপোর্টে তুলে ধরা হয়েছে, বোকো হারামের দৌরাত্ম্যে ঘরছাড়া কিংবা নিরুদ্দেশ ১৫ লক্ষ মানুষের অর্ধেকের বেশিই নিতান্ত নাবালক বা নাবালিকা। রিপোর্টে বলা হয়েছে, শিশুদের বিরুদ্ধে ঘটানো বোকো হারামের অপরাধগুলির মধ্যে রয়েছে যৌন নিপীড়ন, বিবাহের নাম করে বলাৎকার ও সেইসঙ্গে কচি হাতে মানুষ খুন-করা শেখানো।

ইউনিসেফের রিপোর্টে দেখা গিয়েছে, গত তিন বছরে গোটা নাইজেরিয়ায় ৩১৪ জন ছাত্র এবং ১৯৬ জন শিক্ষককেও খুন করা হয়েছে। যতটুকু জানা গিয়েছে তাতে ‘বোকো হারাম’ নামের অর্থ হল ‘পশ্চিমি শিক্ষা নিষিদ্ধ’। পশ্চিমি শিক্ষা নিষিদ্ধ করার আন্দোলন গড়ে তোলার অছিলায় আসলে আইএসের মতোই শৈশব নিধন যজ্ঞে মেতেছে তাদের দোসর বোকো হারাম।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।