নয়াদিল্লি: রাজ্যসভার বরখাস্ত আট সাংসদকে এবার বেনজির আক্রমণ সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশির। ওই সাংসদরা দুর্ব্যবহার করেছেন বলে অভিযোগ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর। রাজ্যসভার অধিবেশন কক্ষে কৃষি বিল পেশের সময় ওই সাংসদদের আচরণকে এক ধরনের ‘গুন্ডামি’ বলেও মন্তব্য করেছেন সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশি।

বিরোধীদের তুমুল হট্টগোলের মধ্যেই রবিবার রাজ্যসভায় পাস হয়ে গিয়েছে কৃষি বিল। কৃষি বিল নিয়ে তুমুল আপত্তি ছিল বিরোধীদের। রবিবার অধিবেশন কক্ষে বিলের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানাতে থাকেন বিরোধী তৃণমূল থেকে শুরু করে অন্য দলের সাংসদরা।

তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন রুল বুক ছিঁড়েছেন ও ডেপুটি চেয়াম্যানের মাইক ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছেন বলে অভিযোগ। ‘শাস্তি’ হিসেবে তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন ও দোলা সেন-সহ মোট ৮ বিরোধী সাংসদকে বরখাস্ত করেছেন রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু।

বরখাস্ত ওই আট সাংসদের আচরণে ক্ষুব্ধ সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশিও। সোমবার তিনি বলেন, ‘‘চেয়ারম্যান নির্দেশ দিলে সংসদ সদস্যকে অধিবেশন কক্ষ ছাড়তে হবে। এর আগে কখনও কোনও সদস্য চেয়ারম্যানের আদেশ অমান্য করেননি। আট সাংসদ সদস্য দুর্ব্যবহার করেছিলেন। এটি ছিল এক ধরনের গুন্ডামি। তাঁরা প্রমাণ করেছেন, যে গণতন্ত্রে তাঁদের কোনও আস্থা নেই।’’

সোমবার রাজ্যসভার অধিবেশনের শুরুতেই আট সাংসদকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেন চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু। প্রতিবাদে সংসদের বাইরে গান্ধীমূর্তির সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে বিক্ষোভ বাম, আপ, কংগ্রেস, তৃণমূল-সহ একাধিক বিরোধী দলের সাংসদরা। সাংসদরা প্ল্যাকার্ড হাতে ধর্নায় বসে পড়েন। আট সাংসদকে বরখাস্ত করে স্বৈরাচরী মনোভাবের পরিচয় দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার, এমনই অভিযোগ বিরোধীদের।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।