প্রসেনজিৎ চৌধুরী: ঐতিহাসিক জনসভা৷ সেই সমাবেশ থেকেই লাখো মানুষ জেনে গিয়েছিলেন জন্ম নিতে চলেছে এক দেশ৷ বিশ্বে ছড়িয়েছিল আলোড়ন৷ উত্তাল ’৭১-এর ফাগুন বাতাস দিয়েছিল ঝড়ের সংকেত৷ দোলা লেগেছিল পদ্মা-মেঘনা-যমুনার পাড় আলো করে থাকা পলাশে-শিমূলে৷ দুলে উঠেছিল গঙ্গা-দামোদর-তিস্তার জল ছুঁয়ে থাকা আরেক বাংলা-পশ্চিমবঙ্গ৷

তিনি বলেছিলেন৷ সিংহ গর্জনে জানিয়েছিলেন, “এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম জয় বাংলা।“

আলোড়িত হয়েছিল দুনিয়া৷ বুড়ি গঙ্গার তীর থেকে ফাগুন বাতাসে ভর করে স্বাধীনতার এই বার্তা ছড়িয়েছিল গঙ্গা তীরের কলকাতায়৷ লাখো বাঙালি শুনেছিলেন স্বাধীন বাংলাদেশ গড়ার ডাক৷

১৯৭১ সাল৷ তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান জনকলরবে আন্দোলিত৷ নির্বাচনে বিরাট সফলতা পেলেও বৃহত্তম দল আওয়ামি লিগকে সরকার গড়তে দিতে নারাজ পাকিস্তান৷ ফলে বিদ্রোহ নেমে এসেছে রাজপথে৷ একইরকম বিদ্রোহ ও গণআন্দোলনে ঠিক আগের ’৬০ দশকে বার বার রক্তাক্ত হয়েছিল পূর্ব পাকিস্তান৷ আন্দোলন দমাতে পাকিস্তান সরকার বারে বারে জারি করেছিল সামরিক আইন৷ এসবেরই বহিঃপ্রকাশ ’৭১ এর ৭ মার্চ৷

সেদিন পূর্ব পাকিস্তানের প্রাদেশিক রাজধানী ঢাকার রাস্তায় অগুন্তি মানুষ৷ সব পথ গিয়ে মিশেছিল রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দি উদ্যান)৷ এই অগুন্তি মানুষের আশা-একটা স্বাধীন দেশ৷ যার সরকারি ভাষা হবে বাংলা৷ তার জন্য জীবনপণ লড়াইয়ে মুখিয়ে লাখো জনতা৷ বিদ্রোহের মশাল জ্বালতে দরকার একটা স্ফুলিঙ্গ৷ ৭ মার্চ সেই কাজটি করেছিলেন বঙ্গবন্ধু৷ দশকের পর দশক পার করেও এই ভাষণ দোলা লাগায় মনে৷

ঢাকা রেসকোর্সে বঙ্গবন্ধুর ভাষণটির কিছু অংশ…..”কিন্তু যদি এ দেশের মানুষকে খতম করার চেষ্টা করা হয়, বাঙালীরা বুঝেসুঝে কাজ করবেন। প্রত্যেক গ্রামে, প্রত্যেক মহল্লায় আওয়ামি লীগের নেতৃত্বে সংগ্রাম পরিষদ গড়ে তোল। এবং তোমাদের যা কিছু আছে, তাই নিয়ে প্রস্তুত থাকো। রক্ত যখন দিয়েছি, আরো রক্ত দেবো। এ দেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাল্লাহ।“

এরপরেই সেই ঐতিহাসিক উক্তি…”এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম জয় বাংলা।“

মুহূর্তে বাঁধ ভাঙা জলস্রোতের মতো ছড়িয়ে পড়ল জনরব-মুক্তির সংগ্রাম৷ ধান ক্ষেতে, লাউ মাচার আড়ালে এক গেরিলা যুদ্ধের প্রস্তুতি শুরু হল৷ সীমান্ত পারের বাংলায় তখন তীব্র রাজনৈতিক লড়াই চলছে৷ তারই মাঝে শেখ মুজিবুর রহমানের ‘মুক্তির সংগ্রাম’ আহ্বানে আলোড়িত হয়েছিলেন সবাই৷