নয়াদিল্লি: করোনা আবহে দর্শকহীন গ্যালারিতেই অনুষ্ঠিত হতে চলেছে আইএসএলের সপ্তম সংস্করণ। শুধু তাই নয়, দেশের একটি কিংবা দু’টি রাজ্যের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে ২০২০-২১ আইএসএলের ব্যপ্তি। সেই দৌড়ে এগিয়ে রয়েছে গোয়া এবং কেরল। সোমবার ক্লাব প্রতিনিধিদের সঙ্গে এফএসডিএলের বৈঠকে এমনই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

ইন্ডিয়ান সুপার লিগের একটি বিশ্বস্ত সূত্র পিটিআই’কে জানিয়েছে, ‘নভেম্বর থেকে মার্চের মধ্যে লিগ ক্লোজ-ডোর অনুষ্ঠিত হবে সে বিষয়টা নিশ্চিত। আয়োজক হিসেবে কেরল, গোয়া, পশ্চিমবঙ্গ এবং উত্তর-পূর্বের কোনও একটি রাজ্যগুলির মধ্যে ভেন্যু চূড়ান্ত করা হবে। তবে এই মুহূর্তে আয়োজক হিসেবে অবশ্যই সামনের সারিতে গোয়া এবং কেরল। একটি কিংবা দু’টি রাজ্যের বিভিন্ন স্টেডিয়ামে লিগ আয়োজন করার প্রাথমিক পরিকল্পনা গৃহীত হয়েছে।’

কারণ হিসেবে যে বিষয়টা উঠে আসছে সেটা হল অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় কোভিড১৯ প্রকোপ গোয়া এবং কেরল রাজ্যদু’টিতে অনেকটাই নিয়ন্ত্রিত। কোভিড১৯ মোকাবিলায় কেরল সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ দৃষ্টান্ত হয়ে রয়েছে গোটা দেশে। আর সে কারণেই আইএসএল আয়োজনের দৌড়ে দেশের বাকি রাজ্যগুলোকে পিছনে ফেলেছে এই দুই রাজ্য। তবে এখনও কিছুই চূড়ান্ত নয়। রাজ্য সরকার এবং কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে তবেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে আইএসএল কর্তৃপক্ষ। অক্টোবরে একটি ভার্চুয়াল ওয়ার্কশপের মাধ্যমে আইএসএলের সমস্ত ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলি টুর্নামেন্ট নিয়ে তাঁদের প্রস্তাব পেশ করার সুযোগ পাবে বলেও জানা গিয়েছে।

ইংল্যান্ডের মাটিতে বায়ো-সিকিওর পরিবেশে টেস্ট সিরিজ অনুষ্ঠিত হওয়ার উদাহরণ টেনে আইএসএলও বায়ো-সিকিওর পরিবেশে আয়োজন করার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে এদিনের সভায়। উত্তর-পূর্বের শহরগুলির মধ্যে আইজল, ইম্ফল, শিলং, গুয়াহাটি এবং গ্যাংটককে ভেন্যু হিসেবে আলোচনায় রাখা হয়েছে। কলকাতাকেও ভেন্যু হিসেবে প্রাথমিক তালিকায় রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, করোনা আবহে ২০১৯-২০ আইএসএলের নিষ্পত্তিও ক্লোজ-ডোর হয়েছিল। গত ১৪ মার্চ মেগা ফাইনালে দর্শকশূন্য গোয়ার জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামে চেন্নাইয়িন এফসিকে হারিয়ে তৃতীয়বারের জন্য খেতাব জিতে নেয় এটিকে।

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব