স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: প্রবল গরমের পর কলকাতার উপর দিয়ে বয়ে গেল কালবৈশাখী। গত কয়েকদিন ধরে প্রবল গরমে কার্যত দগ্ধ হচ্ছিল রাজ্যবাসী। বিশেষত দিনের বেলায় কাঠফাটা রোদে প্রাণ ওষ্ঠাগত হয়ে উঠেছিল।

অবশেষে শনিবার সন্ধেয় ঝড় হল কলকাতার উপর দিয়ে। সন্ধে ৬টা ২৫ মিনিট নাগাদ সেই ঝড় হয়। ১ মিনিট স্থায়ী হয় ঝড়। সেই কালবৈশাখীর গতিবেগ ছিল ৭৮ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা। এক মিনিট স্থায়ী হলেও এই ঝড়ের ফলে আবহাওয়া অনেকটাই ঠাণ্ডা হয়।

এদিন কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলাতে মুষলধারে বৃষ্টি নামল শহরে।

শনিবার সন্ধেয় পূর্বাভাস অনুযায়ী প্রবল বৃষ্টি নামে কলকাতা ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে। এদিন সকাল থেকেও গরম ছিল অপেক্ষাকৃত কম। হাওয়ার বেগও ছিল বেশি। রোদের তাপ কম থাকায় আরামদায়ক আবহাওয়া ছিল শহরে।

সন্ধে নামতেই বৃষ্টি শুরু হয়। সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়া। ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার বেগে হাওয়া বইতে শুরু করে। বেশ কিছুক্ষণ ধরে চলে সেই বৃষ্টি। শহরের বেশ কিছু জায়গায় জল জমে যায়।

অঞ্চলে বৃষ্টি শুরু হয়। বৃষ্টি তেমন জোরে না হলেও বিদ্যুতের ঝলকানি অনেক বেশি রয়েছে। রয়েছে মেঘের গর্জন।

শনিবার সকালে তাপমাত্রা ছিল ২৬.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিক। শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। এর অবশ্য কোনও হেরফের হয়নি। আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বোচ্চ ছিল ৮৪ ও সর্বনিম্ন ৫৪ শতাংশ। এক সকালবেলা আবার তা বেড়ে হয়েছে সর্বোচ্চ ছিল ৯৩ ও সর্বনিম্ন ৫২ শতাংশ।