নয়াদিল্লি: সত্তর বছর অপেক্ষার পর অবশেষে মাতৃত্বের স্বাদ পেলেন তিনি৷ জন্ম দিলেন এক পুত্র সন্তানের৷

এই বয়সে মা হওয়ার খবর হতবাক করলেও, এমনই ঘটনার সাক্ষী থাকল পঞ্জাব৷ গত মাসে এক পুত্র  সন্তানের জন্ম দেন দলজিন্দর কৌর নামে বছর সত্তরের ওই মহিলা৷ এটাই তাঁর প্রথম সন্তান৷ গত দু’বছর হরিয়ানায় ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন (আইভিএফ) চিকিৎসার পর সন্তানের মুখ দেখেন দলজিন্দর৷ তাঁর স্বামীর বয়স ৭৯৷ ৪৬ বছর আগে বিয়ে হয় তাঁদের৷ সন্তানের আশা প্রায় ছেড়েই দিয়েছিলেন তাঁরা৷ কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাঁদের কোল আলো করে আসে ফুটফুটে ছেলে৷

দলজিন্দর বলেন,  ‘‘ভগবান আমাদের প্রার্থনা শুনেছেন৷ আমার জীবন এখন সম্পূর্ণ৷ সর্বশক্তি দিয়ে আমি সন্তানের কামনা করেছি৷ আমার স্বামী সর্বদা আমার খেয়াল রেখেছে৷ পাশে থেকেছে৷’’ আইভিএফ-এর বিজ্ঞাপন দেখার পর শেষ চেষ্টা করে দেখি আমরা৷ আমি মনে প্রাণে একটা সন্তান চেয়েছিলাম৷

দলবীরের কথায় এখন তাঁর বয়স সত্তর৷ তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে দলবীরের বয়স ৭২৷  হাসপাতালেই এই দম্পতির শুক্রানু এবং ডিম্বাণুর নিষেক ঘটানো হয়৷ কিন্তু তাঁদের বয়স দেখার পর অনেকেই বলছেন, তাঁদের মৃত্যুর পর ছেলেটির কী হবে? এর উত্তরে দলজিন্দর বলেন, ‘‘ভগবান সর্বশক্তিমান৷ তিনিই আমাদের সন্তানকে রক্ষা করবেন৷’’