ইসলামাবাদ: ভয়াবহ বিস্ফোরণে ফের কেঁপে উঠল পাকিস্তান। পেশোয়ারের মাদ্রাসায় বিস্ফোরণ। পড়ে থাকা একটি ব্যাগে বিস্ফোরক রাখা ছিল বলে জানা গিয়েছে। এই ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে অন্তত ৭ জনের, আহত ৭০।

মঙ্গলবার সকালে পেশোয়ারের একটি কলোনিতে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এক পুলিশ অফিসার জানিয়েছেন, মাদ্রাসায় একটি প্লাস্টিকের ব্যাগ রাখা ছিল। কেউ বা কারা ওই ব্যাগ রেখে যায়।

আহতদের সঙ্গে সঙ্গে লেডি রিডিং হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তাঁদের চিকিৎসা চলছে। হাসপাতালের তরফে জানানো হয়েছে, মাদ্রাসায় বিস্ফোরণে এখনও পর্যন্ত সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। জখম অন্তত ৭৪ জন। এঁদের মধ্যে ১৯ জন শিশু রয়েছে। তাঁদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

যদিও পেশোয়ারের এক বর্ষীয়ান পুলিশ কর্তা ওয়াকার আজিম জানিয়েছেন, “অজ্ঞাত পরিচয় কয়েকজন দুষ্কৃতী মাদ্রাসার ভিতরে বিস্ফোরক রেখেছিল। তাতে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। জখম ৩৬ জন।” পরে অবশ্য পেশোয়ারের এসপি মনসুর আমন জানান, “বিস্ফোরণে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। উদ্ধারকার্য চলছে।” কারা কী উদ্দেশ্যে এই বিস্ফোরণ ঘটালো তা নিয়ে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। কোনও সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী এখনও হামলার দায় স্বীকার করেনি।

মাদ্রাসা প্রাপ্তবয়স্ক পড়ুয়াদের জন্য। সেইসময় অনেকেই সেখানে পড়াশোনা করছিল। এই বিস্ফোরণে পাঁচ কেজি উন্নতমানের বিস্ফোরক ব্যবহার করা হয়েছে। কেউ ব্যাগে করে তা নিয়ে এসেছিল। রবিবার বালোচিস্তানে আরেকটি বিস্ফোরণে মারা গিয়েছেন ৩ জন। সেখানে শহরের অন্য অংশে বিরোধীদের একটি বিরাট সমাবেশের আগেই কড়া নিরাপত্তার মধ্যেই এই বিস্ফোরণ ঘটে। ২১ অক্টোবর করাচির গুলশন-ও-ইকবালে একটি চারতলা বাড়ি ধসিয়ে দেয়। তাতে মারা গিয়েছেন ৫ জন, জখম ২০ জন।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।