নয়াদিল্লি: গতমাসে লিবিয়াতে অপহৃত সাত ভারতীয় নাগরিক। লিবিয়া সরকার তাঁদের উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানিয়েছে বিদেশমন্ত্রক।

জানা গিয়েছে ওই অপহৃত ৭ জন অন্ধ্রপ্রদেশ, বিহার, গুজরাত এবং উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা। ওই ৭ জনই লিবিয়াতে তেল সরবরাহের কাজে যুক্ত ছিলেন, ১৪ সেপ্টেম্বর আশ্বরিফ নামক একটি জায়গা থেকে তাঁদের অপহরণ করা হয়।

বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, অপহৃতরা ভারতে ফিরে আসার জন্য ত্রিপোলির বিমানবন্দরে আসছিলেন। কিন্তু মাঝরাস্তাতেই তাঁদের অপহরণ করা হয় বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন – ‘নবান্নে তালা দিয়ে চলে গেলে কীভাবে বিজেপির মোকাবিলা করবেন’, মমতাকে কটাক্ষ সূর্যকান্তর

অপহৃতদের উদ্ধারের জন্য ভারতের বিদেশমন্ত্রক লিবিয়া সরকার এবং কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংস্থার সংস্পর্শে রয়েছে বলে জানান অনুরাগ শ্রীবাস্তব। এছাড়া তুনিসিয়ার ভারতীয় দূতাবাসও তাদের উদ্ধারে সচেষ্ট হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

সরকারের তরফে অপহৃতদের পরিবারের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হয়েছে এবং ওই ৭ জন আপাতত নিরাপদে রয়েছে ও তাঁদের উদ্ধারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

কেন্দ্রের পক্ষ থেকে অপহৃতদের পরিবারকে জানানো হয়েছে, “আমরা আমাদের নাগরিকদের খোঁজ করে দ্রুত তাদের বন্দীদশা থেকে মুক্তি দেওয়ার জন্য লিবিয়ার কর্তৃপক্ষ এবং নিয়োগকর্তাদের সঙ্গে পরামর্শ ও সমন্বয় করে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।”

তবে এই প্রথম না, এর আগেও লিবিয়াতে অপহরণ করা হয়েছিল ভারতীয়দের। ২০১৫ সালে চার জন ভারতীয়কে অপহরণ করা হয় ও পরে তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হয়। এছাড়া মোসুলে ৩৯ জন শ্রমিককে আইএসআইএস-রা অপহরণ করেছিল।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.