আমেদাবাদ: মর্মান্তিক! হোটেলের সেপটিক ট্যাঙ্ক পরিষ্কার করতে গিয়ে দম আটকে মৃত্যু হল ৭ জনের। ঘটনাটি ঘটেছে গুজরাতের ভদোদরা শহর থেকে ৩০ কিমি দূরে অবস্থিত ফার্টিকুই গ্রামে। ঘটনায় শোকের ছায়া মৃতদের পরিবারে।

ভদোদরা শহর থেকে ৩০ কিমি দূরে অবস্থিত ফার্টিকুই গ্রাম। সেখানেই রয়েছে হোটেলটি। যেখানে ঘটে গিয়েছে মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি। হোটেলের সেপটিক ট্যাঙ্ক পরিষ্কার করতে নেমে সময় দম আটকে মৃত্যু হয় সাতজন সাফাই কর্মীর। এঁদের মধ্যে ওই হোটেলের তিন কর্মীও রয়েছেন বলে খবর। বাকি চারজন বাইরে থেকে আসা সাফাই কর্মী। উদ্ধার করা গেছে সাতজনকেই।

হোটেল কর্মীদের মধ্যে তিন জন হলেন অজয় বাসব, সহদেব বাসব এবং বিজয় চৌহান। পাশাপাশি মৃত্যুফাঁদে প্রাণ হারান সাফাইকর্মী অশোক হরিজন, ব্রিজেশ হরিজন, মহেশ হরিজন ও মহেশ পতনওয়াড়িয়া। এই চার সাফাই কর্মীকে ডেকে আনা হয়েছিল দাভোইয়ের ধুবাবি গ্রাম থেকে।

দাভোই থানার ডিএসপি কল্পেশ সোলাঙ্কি জানিয়েছেন, কীভাবে মৃত্যু হল এঁদের! জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। জেলা আধিকারিক কিরণ জাভেরি ঘটনা প্রসঙ্গে জানান, “সেপটিক ট্যাঙ্ক পরিষ্কার করতে নেমেছিলেন সাফাইকর্মীরা। কিন্তু কাজের শেষে কেউই আর বেরিয়ে আসেন নি। ওঁদের বের করতে গিয়েই ম্যানহোলে নামেন হোটেলের তিন কর্মী। সেখানেই দম বন্ধ হয়ে মারা যান সবাই”

জানা গিয়েছে, সেপটিক ট্যাঙ্ক পরিষ্কার করতে নামেন মহেশ পতনওয়াড়িয়া। দীর্ঘক্ষণ তার কোনো সাড়া না পেয়ে ম্যনহোলে নামেন বাকিরা। তাদেরও কোনও খোঁজ না পাওয়ায় হোটেলের তিন কর্মীও নামেন। সবাই বিষাক্ত গ্যাসে অচৈতন্য হয়ে পড়েন ঘটনাস্থলে বলে অনুমান করা হচ্ছে।