মুম্বই: সারা দেশেই আক্রান্তের সংখ্যাটা বেড়ে চলেছে লাফিয়ে লাফিয়ে। আর মহারাষ্ট্রে সংখ্যাটা বেশ উদ্বেগজনক। ইতিমধ্যেই মহারাষ্ট্রে হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। আর ধারাভি বস্তিতে করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ায় আশঙ্কা বেড়েছে কয়েকগুণ।

মুম্বইয়ের এই জনবহু বস্তিতে কয়েক লক্ষ মানুষের বাস। আর সেখানে এখনও পর্যন্ত ১৭ জনের আক্রান্ত হওয়ার খাবর পাওয়া গিয়েছে ধারাভি বস্তি থেকে মৃত্যু হয়েছে তিনজনের। তাই ধারাভির জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করল প্রশাসন।

সাড়ে ৭ লক্ষ বাসিন্দাকে করোনার টেস্ট করা হবে বলে জানা গিয়েছে। আগামী ১০-১২ দিনের মধ্যে সেই টেস্ট করার ব্যবস্থা করেছে বিএমসি। এর জন্য ১৫০ জন চিকিৎসকের সাহায্য নিচ্ছে প্রশাসন।

মুম্বইতে নতুন করে ১৬২ জনের সংক্রমণের ঘটনার পর মোট করোনা পজিটিভের সংখ্যা ১২৯৭ জন।

শুধুমাত্র আক্রান্তই নয়, মৃত্যুর সংখ্যার নিরিখেও ভারতের সকল রাজ্যগুলির মধ্যে সবার আগে রয়েছে মহারাষ্ট্র। মহারাষ্ট্রে এপর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৭২ জনের, যা প্রায় গোটা দেশের অর্ধেক।

নাজেহাল অবস্থা বাণিজ্যনগরী মুম্বইয়ের। শহরে COVID-19-এ মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৭১৪, যাঁদের মধ্যে ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে মুম্বইয়ের যে অঞ্চলটিকে নিয়ে চিন্তা সব থেকে বেশি, সেই ধারাভি বস্তি এখনও পর্যন্ত আক্রান্ত ১৩। মৃত্যু হয়েছে দু’জনের। এশিয়ার বৃহত্তম বস্তিতে করোনা সংক্রমণের খোঁজ গোটা দেশের ভয় বাড়াচ্ছে।

মুম্বইয়ের পরই পুণে, যেখানে মোট আক্রান্ত ১৯৯। মারা গিয়েছেন ১৭ জন। এছাড়া করোনা রোগীর সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে থানে, নাগপুর, সাতারা, পিম্পড়ি-চিঞ্চাওয়াড়, আহমেদনগর থেকেও। বিশাল এলাকায় করোনা ছোবল মেরেছে মহারাষ্ট্রে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।