ভুবনেশ্বরঃ একে একে বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। ওডিশায় গিয়ে করোনা আক্রান্ত পশ্চিমবঙ্গের একজন প্রবীণ। তাঁর বয়স ৬৯।

এছাড়াও ৫১ বছরের একজন মহিলাও করোনা আক্রান্ত, পরীক্ষার পর জানা গিয়েছে। ঐ মহিলা ওডিশার ঢেণকাণালের বাসিন্দা বলেই জানা গিয়েছে।

যেহেতু উদ্বেগ ক্রমশ বেড়েই চলেছে, তাই দেশের প্রথম রাজ্য হিসেবে লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে নবীন পট্টনায়েক শাসিত ওডিশা সরকার।

বৃহস্পতিবার রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, দুজন নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ৫১ বছরের একজন মহিলা ঢেণকাণালের বাসিন্দা এবং ৬৯ বছরের ওই প্রবীণ মেদিনীপুরের বাসিন্দা। তাঁকে অ্যাম্বুলেন্সে ওডিশায় নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে দু’জনই ভুবনেশ্বরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এদিন, ওডিশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনা্য়ক বলেন, ‘রাজ্য সরকার লকডাউন ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। লকডাউন চলাকালীন আপনাদের সহযোগিতা আমাদের লড়াই করার শক্তি জুগিয়েছে। এই অবস্থায় আগামিদিনেও আপনারা সাহায্য করবেন বলে আশা করছি।’

লকডাউন বর্ধিত হবে কিনা, তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছেই। এরই মধ্যে দেশের পরিস্থিতিকে ‘জরুরি অবস্থা’ বলে বর্ণনা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

এদিকে, বুধবারই প্রধানমন্ত্রী মোটামুটিভাবে স্পষ্ট করে দিয়েছেন যে ১৪ এপ্রিল শেষ হচ্ছে না লকডাউন। সর্বদলীয় বৈঠকে তিনি বলেছেন, দেশে জরুরি অবস্থা তৈরি হয়েছে। তার জন্য আরও কড়া ব্যবস্থা নিতে হবে সরকারকে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে যে, ‘গত এক শতাব্দীরও বেশি সময়ের মধ্যে মানুষের জন্য সবচেয়ে বড় বিপদ ডেকে এনেছে করোনাভাইরাস। জীবন আর একই রকম থাকবে না। এটা আমাদের সবাইকে অবশ্যই বুঝতে হবে এবং সবাই মিলে দৃঢ়ভাবে তার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। আমাদের ত্যাগ ও ঈশ্বর জগন্নাথের আশীর্বাদে এই দিন কেটে যাবে।’ ১৭ জুন পর্যন্ত বন্ধ থাকবে ওড়িশার সমস্ত স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় ও অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।