স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান: এনআরএস কাণ্ডের জের এখনও অব্যাহত বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে৷ চলছে পাঁচদিন ব্যাপী জুনিয়র চিকিৎসকদের কর্ম বিরতি আন্দোলন৷ একইভাবে রাজ্য জুড়ে চিকিৎসকদের গণ ইস্তফার ঢেউয়ে পিছিয়ে নেই বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল৷ ইতিমধ্যে ৬১ জন চিকিৎসক ইস্তফা দিয়েছে৷

শুক্রবার থেকেই এই ইস্তফা দেওয়ার তোড়জোড় শুরু হয়েছিল বর্ধমান কলেজ ও হাসপাতালে৷ অবশেষে শনিবার ৬১ জন চিকিৎসক তাঁদের ইস্তফা পত্র জমা দেন মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ সুহৃতা পালের কাছে। গত চার দিনের মতোই পঞ্চম দিনেও বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে জুনিয়র চিকিৎসকদের পরিস্থিতি একই জায়গায় থাকল। কোনো রকম কোনো উন্নতি বা অবনতি চোখে পড়েনি। তবে এদিন রোগীদের আসার সংখ্যা অনেক কমেছে।

যদিও পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ীই জরুরি বিভাগ সংশ্লিষ্ট ঘরে আউটডোরের পুরনো রোগীদের চিকিৎসা, অপারেশন সবই হয়েছে। এমনকি শুক্রবার থেকেই ধর্নামঞ্চে নিজেদের দাবি দাওয়া নিয়ে বসে থাকলেও চিকিৎসকের মানবিক ধর্ম ভুলতে পারেননি বেশ কয়েকজন জুনিয়র চিকিৎসক। কর্মবিরতির পঞ্চম দিনেও ধর্নামঞ্চ থেকেই বেশ কয়েকজন জুনিয়র চিকিৎসক রোগীদের পরিষেবা দিয়েছেন৷ প্রেসক্রিপশন লিখেছেন।

হাসপাতাল সুপার ডা. উত্পল দাঁ জানিয়েছেন, সিনিয়র চিকিত্সক, ফ্যাকাল্টি সদস্য এবং জুনিয়র চিকিৎসকরা হাসপাতালের জরুরি বিভাগকে চালু রাখার বিষয়ে সবরকমের সহযোগিতা করছেন।