ভদোদরা: সাধারণত ধর্ষণ এবং নির্যাতন শব্দদুটি সামনে এলেই মাথাতে স্বাভাবিক ভাবেই আসে নারী বা কন্যা সন্তান। কিন্তু এই জাতীয় ঘৃণ্য বিকৃত অপরাধ যে কারোর সঙ্গে হতে পারে তা দেখিয়ে দিল ভারুছের ঘটনা। ৬ বছর বয়সী এক নাবালককে যৌন নির্যাতন করে হত্যা করার অপরাধে ২৫ বছরের এক ব্যাক্তিকে রবিবার গ্রেফতার করেছে ভারুচের পুলিশ।

পুলিশি তরফে জানা গিয়েছে, ওই নাবালকের অভিভাবকেরা তাকে খুঁজে না পেয়ে নিখোঁজের অভিযোগ করতে থানাতে গিয়েছিল। তারা জানিয়েছিল ওই শিশুটিকে শনিবার বিকেলের পর থেকেই তারা আর খুঁজে পাননি।

অভিযোগ পেয়েই দ্রুত তল্লাশি শুরু করেছিল স্থানীয় পুলিশ। তারপরে রবিবার একটি ফাঁকা ঘরের বাথরুম থেকে ওই নাবালকের দেহ উদ্ধার করা হয়। তার অভিভাবক ২৫ বছরের এক ব্যাক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি তাদের সঙ্গে একই জায়গাতে থাকতেন।

অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইপিসির ৩৬৩, ৩৪২, ৩৭৭, ৩০২, ২০১ ধারায় এবং পক্সো আইনে মামলা করা হয়েছে।

তদন্তকারী অফিসারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে মৃতদেহ পোস্ট মর্টেমের জন্য পাঠানো হয়েছে। জানা গিয়েছে অভিযুক্ত ব্যাক্তি ওই নাবালকের বাবার সঙ্গে কাজ করত। তার শরীরেও বেশ কয়েক জায়গাতে ক্ষতচিহ্ন দেখতে পাওয়া গিয়েছে।

ধর্ষণ এবং নির্যাতনের বিরুদ্ধে এর আগে অনেকেই মুখ খুলেছিলেন। বারবার প্রশাসনের কাছে জানতে চেয়েছিলেন এই ঘৃণ্য অপরাধ শেষ কবে হবে। কিন্তু সেভাবে যে হুশ ফেরেনি তা বোঝা গিয়েছে বারবার।