প্রতীকী ছবি

টোকিওঃ  শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল জাপান। ভোররাতে জাপানের হোনশু দ্বীপের দক্ষিণ উপকূলের কাছে সাগরে প্রবল এই ভূমিকম্প অনুভূত হয়। যদিও এজন্যে এখনও পর্যন্ত কোনও সুনামি সতর্কতা জারি করা হয়নি। ভোররাতের দিকে ৬ দশমিক ৩ মাত্রার ভূমিকম্পটি হয় বলে ইউরোপীয় ভূমিকম্প মনিটরিং সার্ভিস (ইএমএসসি) জানিয়েছে বলে প্রকাশিত খবরে দাবি করেছে সংবাদসংস্থা রয়টার্স।

ভূমিকম্পটি যে এলাকাজুড়ে অনুভূত হয়েছে সেখানে তিন কোটি লোকের বাস বলে জানিয়েছে ইএমএসসি। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহত বা ক্ষয়ক্ষতির কোনও খবর পাওয়া যায়নি। তবে প্রবল এই ভূমিকম্পে তীব্র আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।

উল্লেখ্য, মাত্র ২০ মিনিটের ব্যবধান। শনিবার গভীর রাতে পরপর দুবার ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে ফিলিপাইন। দুবারই শক্তিশালী ভূমিকম্প অনুভূত হয় গোটা দেশজুড়ে। শক্তিশালী এই ভূমিকম্পে অন্তত সাতজনের নিহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়। প্রবল কম্পনে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলেও জানা যায়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক আতঙ্ক তৈরি হয়। নতুন করে কম্পনে আতঙ্কে বাড়ি-ঘর ছেড়ে নিরাপদ জায়গায় আশ্রয় নেন ফিলিপাইনের কয়েক হাজার মানুষজন।

সিএনএনে প্রকাশিত খবরে জানা যায়, শনিবার স্থানীয় সময় ভোর ৪টের দিকে দেশের উত্তরের দ্বীপপুঞ্জে প্রবল এই ভূমিকম্প আঘাত হানে। এর মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ৪। এর ২০ মিনিট পর বাটানস প্রদেশে রিখটার স্কেলে ৫ দশমিক ৯ মাত্রার দ্বিতীয় ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। স্থানীয় বাটানস প্রদেশীয় দুর্যোগ ঝুঁকি মোকাবিলা পরিষদের প্রধান রোলডান এসকুদিল এক সাক্ষাতকারে জানিয়েছেন, ভূমিকম্পের সময় বেশিরভাগ মানুষ ঘুমিয়ে থাকায় হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হয়। সেই রেশ কাটতে না কাটতে এবার শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল জাপান।