স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বড়দিনের আগে শহর ও শহরতলিতে ফের সক্রিয় এটিএম প্রতারকরা৷ একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের এটিএম থেকে প্রতারকরা একবারে ৫০ হাজার টাকা তুলে নিলেন৷ গ্রাহকের প্রাথমিক অনুমাণ এই প্রতারণার সঙ্গে ব্যাংকের কেউ জড়িত থাকতে পারেন৷ লালবাজার,ব্যাংক ও সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগ জানাতে গিয়েও হয়রানির শিকার হন ওই গ্রাহক৷

নদিয়া জেলার হরিণঘাটার বাসিন্দা রাজু দেবনাথ৷ তিনি সল্টলেকের একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মী৷ হরিণঘাটার একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে তার স্ত্রী বন্দিতা দেবনাথের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট রয়েছে৷ কর্মসূত্রে বর্তমানে থাকেন বাগুইআটি দেশবন্ধুনগরে৷ ফলে ওই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের দমদম নাগেরবাজারের ব্রাঞ্চে অ্যাকাউন্টটি ট্রান্সফার করতে চান৷ তার জন্য সম্প্রতি তারা হরিণঘাটার ব্যাংকে যান৷

ব্রাঞ্চ পরিবর্তন ও এটিএম কার্ডের আবেদন করেন৷ ওই দিনই হরিণঘাটার ব্রাঞ্চ থেকে বন্দিতা দেবনাথের হাতে এটিএম কার্ড ও বন্ধ খামে তার পিন নম্বর দিয়ে দেওয়া হয়৷ এবং বলা হয় ৪৮ ঘন্টার মধ্যে পিন রিসেট করতে হবে৷ আর সে কাজটি করতে গিয়েই গ্রাহক খোয়ালেন ৫০ হাজার টাকা৷

ফাইল ছবি

অভিযোগ,ঘটনার পর রাজু দেবনাথরা হরিণঘাটার ব্যাংকের সাথে যোগাযোগ করেন৷ এবং সঙ্গে সঙ্গে চিনা পার্কের ই-কর্নারের পাশের রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের শাখায় যান৷ তারা তাকে লালবাজার যেতে বলেন৷ রাজুবাবু ছোটে যান লালবাজার, সেখান থেকে বলা হয় বিধাননগর পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করতে৷ তারপরই আসেন বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানায়৷ অভিযোগ তাকে দীর্ঘক্ষণ বসিয়ে রাখার পরও কোনও অভিযোগ নেওয়া হয়নি৷ এরপর যান বাগুইআটি থানায়,সেখানে অবশেষে একটি জেনারেল ডায়েরি নেওয়া হয়৷

ফাইল ছবি

এই ঘটনায় আমরা টেলিফোনে যোগাযোগ করি ব্যাংকের সহকারি ম্যানেজারের সঙ্গে৷ তিনি জানান, যা বলার গ্রাহক কে বলা হয়েছে৷ তবে রাজু দেবনাথ জানান, ব্যাংক তাকে জানিয়েছে যে ২৫টি ২০০০ টাকার নোট একবারে তোলে নেওয়া হয়েছে৷