শ্রীনগর: সকাল থেকে গুলির শব্দে ত্রস্ত কাশ্মীর৷ এরই মাঝে ভারতীয় সেনার পক্ষ থেকে জারি করা হয়েছে কড়া সতর্কতা৷ জানানো হয়েছে, পাক অধিকৃত কাশ্মীর বা পিওকে সীমান্ত দিয়ে জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গি সংগঠনের ৫ জঙ্গি ঢুকে পড়েছে কাশ্মীরে৷ তারা বড়সড় হামলার ছক কষেছে৷ এই মর্মেই সতর্কতা জারি করা হয়েছে উপত্যকা জুড়ে৷

গোয়েন্দা সূত্রে খবর, তারা মূলত নিশানা করেছে ভারতীয় সেনা কনভয়কে৷ পাকিস্তানের মদতপুষ্ট এই জঙ্গি সংগঠন যে কোনও মুহূর্তে হামলা চালাতে পারে কাশ্মীরের মাটিতে৷ এই দলে থাকা প্রতিটি জঙ্গি অত্যন্ত প্রশিক্ষিত বলে খবর৷ যে কোনও ধরণের অত্যাধুনিক অস্ত্র চালাতে এরা সক্ষম বলেও জানা গিয়েছে৷

আরও পড়ুন : তিন তালাককে দেহব্যবসার সঙ্গে জড়িয়ে বিতর্কের শীর্ষে বিজেপি বিধায়ক

ইতিমধ্যেই কেন্দ্র সরকারের পক্ষ থেকে ভারতীয় সেনা ও বায়ুসেনাকে সবধরণের পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে তৈরি থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ পাশাপাশি, উপত্যকায় পাঠানো হচ্ছে আরও সেনা৷ বৃহস্পতিবার থেকেই কাশ্মীরের আকাশে নজরদারি চালাচ্ছে ভারতীয় বায়ুসেনা৷ বৃহস্পতিবার বিকেল থেকেই নজরদারি শুরু হয়েছে৷

কাশ্মীরে মোতায়েন করা হয়েছে ২৮০ কম্পানি নিরাপত্তা বাহিনী৷ বৃহস্পতিবার দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানিয়েছে৷ এরমধ্য়ে বেশিরভাগই সিআরপিএফ জওয়ান বলে খবর৷ উপত্যকার বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে জওয়ানদের৷ চলছে তল্লাশি৷ মূলত জনবহুল জায়গাগুলিতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে৷

শহরে ঢোকার গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলিতে চলছে নাকা চেকিং৷ সেই সব পয়েন্টে মোতায়েন করা হয়েছে সেন্ট্রাল আর্মড প্যারামিলিটারি ফোর্স ও স্থানীয় থানার পুলিশ কর্মীদের৷ তবে কিছু বিচ্ছিন্ন এলাকায় থাকা মন্দির থেকে নিরাপত্তারক্ষীদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ কারণ সেখানে হামলা হলে মোতায়েন থাকা পুলিশ কর্মীদের সাহায্যে সমস্যায় পড়তে হতে পারে ভারতীয় সেনাকে৷

আরও পড়ুন : কাশ্মীরে ভারতের সেনা মোতায়েন নিয়ে চাপে পাকিস্তান

উপত্যকার বিভিন্ন স্কুলে গরমের ছুটির সময় এগিয়ে আনা হয়েছে৷ বৃহস্পতিবার থেকে আরও ১০ দিনের অতিরিক্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে৷ এছাড়াও অমরনাথ যাত্রার জন্য খুলে দেওয়া কিছু লঙ্গরখানা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে নিরাপত্তার কারণে৷

এদিকে শুক্রবার সকাল থেকেই উত্তপ্ত কাশ্মীর৷ ফের শোপিয়ানে গুলির লড়াই৷ শুক্রবার, দিনের শুরুতেই জঙ্গিদের উপস্থিতির খবর পেয়ে তল্লাশি অভিযানে নামে সেনাবাহিনী৷ জঙ্গিরা গুলি ছুঁড়লে পাল্টা জবাব দেয় সেনা৷ এক সেনা শহিদ হন বলে জানা যায়৷

জানা গিয়েছে, সেনার 34RR, এসওজি এবং সিআরপিএফ গোটা এলাকা ঘিরে ফেলে এবং পান্দুশানে তল্লাশি শুরু করে৷ মনে করা হচ্ছে, সেনার জালে ৩ জঙ্গি আটকে পড়েছে৷