কুন্নুর: কলকাতা: সিপিএমের ৫ কর্মীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দিল কেরলের একটি আদালত। অভিযোগ গুরুতর। ওই রাজ্যের কুন্নুর জেলায় ৬২ বছরের এক বিজেপি সমর্থককে কুপিয়ে খুন করার অভিযোগ রয়েছে ওই সিপিএম সদস্যদের বিরুদ্ধে। ২০০৮-এর ৭ মার্চের ঘটনা। কুন্নুর জেলার ঠেলাসেরি গ্রামে কে ভি সুরেন্দ্রনকে তাঁর বাড়ির অদূরে খুন করা হয়।

ঘটনার পরই মূল অভিযুক্ত হয়ে যান মোট ৭ সিপিএম কর্মী। তবে, প্রমান না থাকার কারণে ২ কর্মীকে মুক্তি দেয় আদালত। অখিলেশ, এম লিজেশ, কে ভিনেস, কালেশ এবং সাইজেশকে যাবজ্জীবন সাজা দেওয়া হয়েছে বলে আদালত সূত্রে খবর। আদালত ওই পাঁচ অভিযুক্তকে সাজা দিয়ে এও বলেছে, এক লাখ টাকা করে প্রত্যেক অভিযুক্ত কে দিতে হবে। অনাদায়ে আরও যাবজ্জীবন সাজার পর আরও ৬ মাস বাড়তি সময় সাজা ভোগ করতে হবে।

আদালত জানিয়েছে, অভিনযুক্তরা টাকা দিলে সেটাকে সুরেন্দ্রনের পরিবারকে দিতে হবে। ঠেলাসেরির এই ঘটনা কোনই সাধারণ ঘটনা নয়। সেই সময় কেরলের লাল-গেরুয়া বাহিনীর সন্ত্রাস চলছিল। পর পর বিভিন্ন ঘটনায় ৭ সিপিএম-বিজেপির জন খুন হয়েছিলেন। কে ভি সুরেন্দ্রনকে খুনে তাঁর স্ত্রী-ই একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী ছিলেন। তিনি সাক্ষী দিয়েছিলেন। সেশন আদালতের বিচারক পিএন ৭ সাত অভিযুক্তের দুজনকে প্রমাণের অভাবে ছেড়ে দিলেও বাকিরা সাজা পেয়েছি। কে ভি সুরেন্দ্রনকে হত্যার চাঞ্চল্যকর তথ্য হিসাবে উঠে এসেছে যে, ঘটনার সময় তিনি শয্যাশায়ী ছিলেন। কিডনির অসুখে ভুগেছিলেন ওই বিজেপি সমর্থক। সেই সময় তাঁকে খুন করা হয়।