নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: উত্তর ২৪ পরগণায় ঢোকার চেষ্টা করছিল ৫জন। অবৈধ ভাবে ভারত সীমান্ত পেরিয়ে উত্তর ২৪ পরগণায় অনুপ্রবেশের চেষ্টা রুখে দিল বিএসএফ। বিএসএফের হাতে ধরা পড়েছে ৫জন বাংলাদেশী। বুধবার এই তথ্য জানিয়েছেন বিএসএফের আধিকারিকরা।

মঙ্গলবার গভীর রাতে টহলদারির সময়ে এই পাঁচ বাংলাদেশীকে গ্রেফতার করে বিএসএফ। উত্তর ২৪ পরগণার ঘোজাডাঙা ও তারালি এলাকা সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারতে প্রবেশের চেষ্টা চালাচ্ছিল এরা বলে অভিযোগ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পরেই সন্দেহ হয় টহলরত বিএসএফ জওয়ানদের। জানা যায়, বাংলাদেশী দালালদের হাত ধরে এরা ভারতে প্রবেশের চেষ্টা করছিল।

ইতিমধ্যেই এদের পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। এদের কাছে কোনও নথি বা বৈধ কাগজপত্র ছিল না বলেই জানা গিয়েছে। মঙ্গলবার রাতে রাজনগর এলাকা দিয়েও অনুপ্রবেশের ছক বানচাল করেছে বিএসএফ। রিপোর্ট বলছে. ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিএসএফের হাতে ১২১৪ জন বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারী গ্রেফতার হয়েছে।

সীমান্তে কড়া নজরদারি সত্ত্বেও কিছুতেই আটকানো যাচ্ছে না অনুপ্রবেশ। দিন হোক বা রাত বিএসএফের চোখকে ধুলো দিয়ে ভারতে ঢুকে পড়ছে বহু বাংলাদেশী। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফর শেষ হতে না হতেই ফের লখনউ বিমানবন্দরে ধরা পড়ল এক অবৈধ বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারী।

জানা গিয়েছে রেজবা নামের ওই বাংলাদেশী নিজেকে ভারতীয় এবং পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনার বাসিন্দা পরিচয় দিয়ে ঢুকে পড়ে ভারতে। শুধু তাই নয় নিজের পরিচয় গোপন করে লখনউ থেকে কলকাতায় আসার ফ্লাইট ধরার চেষ্টায় ছিল ধৃত ওই বাংলাদেশীর। বর্তমানে ধৃত ওই ব্যক্তি পুলিশের হেপাজতে রয়েছে। কি করে সে ভারতীয় জাল পাসপোর্ট বানিয়ে এই দেশে ঢুকে পড়ল সেই বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য আটক করেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটে উত্তরপ্রদেশের লখনউ’এর চৌধুরী চরন সিং আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ধৃত ওই অপরাধী আদতে বাংলাদেশের নাগরিক। জাল ভারতীয় পাসপোর্টে তার নাম রয়েছে, সত্যজিৎ দাস এবং ঠিকানা দেওয়া রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার।