নয়াদিল্লি: ধর্ষণ ও শ্লীলতাহানি রুখতে এবার বড়সড় পদক্ষেপ গ্রহণ করল দিল্লি পুলিশ। দিল্লি কোর্টে তারা জানায় নারী নিরাপত্তার উপর জোর দিতে বেশ কিছু এলাকায় প্রায় ৪,৩৮৮ টি সিসিটিভি বসানোর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে৷

দিল্লি ইউনিভার্সিটির নর্থ ক্যাম্পাসে বেশ কিছু মহিলার উপর মূত্র ও বীর্য ভর্তি বেলুন ছোঁড়ার অভিযোগ ওঠে বেশ কিছুদিন আগে। এরপরেই নারী নিরাপত্তার স্বার্থে কয়েকজন আইনজীবী পিআইএল ফাইল করা হয়৷ পিটিশন দায়েরকারী আইনজীবীরা নারী সুরক্ষার জন্য একটি নির্দেশনামা তৈরি করার দাবি করেন। মূলত হোলি এবং ইংরেজী নববর্ষের সময়।

পড়ুন: নেই অ্যাম্বুলেন্স-স্টেচার, গর্ভবতীকে কোলে নিয়েই হাসপাতালে ছুটল পুলিশ

দিল্লি পুলিশের এই হলফনামার শুনানি হয় প্রধান বিচারপতি রাজেন্দ্র মেনন এবং বিচারপতি ভি কে রাওয়ের বেঞ্চে। গত ১৬ই মে আদালত সিসিটিভি বসানোর বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্য করে।

এদিকে পুলিশ হলফনামায় উল্লেখ করে ক্যাম্পাস চত্বরে একজন মহিলার উপর ‘মূত্র ও বীর্যপূর্ণ’ বেলুন ছোঁড়ার ঘটনায় অভিযোগকারী পরবর্তীকালে তদন্তে সহযোগিতা করেননি। যার ফলে মামলাটিকে অসমাপ্ত বলে ঘোষণা করে পুলিশ। এদিকে ফরেনসিক তদন্তেও মহিলার পোশাকে ‘মূত্র ও বীর্য’-এর কোনও নমুনা পাওয়া যায়নি।

এর পাশাপাশি পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, মার্চ মাসে তারা এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করলেও পরে জামিনে ছাড়া পান তিনি। নিরাপত্তার ক্ষেত্রে নিজেদের স্বনির্ভর করে তোলার পাঠ দেবে পুলিশ।

মহিলাদের সুবিধার্থে তারা বেশ কিছু মহিলা পুলিশ কন্ট্রোল রুম,মহিলা পুলিশ বুথের সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্তের কথাও জানান তারা।