নয়াদিল্লি: এমনিতেই রবিবার সন্ধ্যেতে রাশিয়াকে ছাপিয়ে করোনা তালিকায় বিশ্বে তৃতীয় স্থানে চলে এসেছিল ভারত। এরই মধ্যে ফের রেকর্ড মৃত্যু ভারতে। আগের ২৪ ঘন্টার হিসেবে আমেরিকার থেকেও করোনায় মৃত্যুতে এগিয়ে ভারত।

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে যে তথ্য সোমবার সকালে সামনে আনা হয়েছে, তা অনুযায়ী আগের ২৪ ঘন্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ৪২৫ জনের। সারা বিশ্বে এই মৃত্যু সংখ্যার নিরিখে এগিয়ে কেবল মাত্র এগিয়ে একটি দেশ। সেটি ব্রাজিল। ২৪ ঘন্টায় সেখানে মৃত্যু হয়েছে ৬০২ জনের।

ভারতে ৪২৫ জনের মৃত্যু হলেও আমেরিকাকে টপকে গিয়েছে এই সংখ্যা। ওই ২৪ ঘন্টার বিচারে আমেরিকায় মৃত্যু হয়েছে ২৭১ জনের। উল্লেখ্য, আমেরিকায় সংক্রামিত প্রায় ২৯ লক্ষ মানুষ।

এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্যের হিসেবে ভারতে মোট মৃত্যু হয়েছে ১৯ হাজার ৬৯৩ জনের। ব্রাজিলে মৃত্যু সংখ্যা ৬৪ হাজার ৮৬৭ ও আমেরিকায় সংখ্যাটা ১ লক্ষ ২৯ হাজার ৯৪৭ জন।

ভারতে মোট আক্রান্তের মধ্যে মৃত্যুর হার শতকরা ২.৮ জনের। যা কিনা আগের সপ্তাহে ছিল ৩ শতাংশ। ব্রাজিলে এই মৃত্যুর হার শতকরা ৪.১ ও আমেরিকায় ৪.৫ শতাংশ।

আমেরিকা, ব্রাজিল এবং ভারত এই তিনটি দেশে সবচেয়ে বেশি করে ছড়িয়েছে করোনা সংক্রমণ। ভারতের জন্য কয়েকশো গুন চিন্তা বাড়িয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলেছে সংক্রমণ। ৬ লক্ষ থেকে মোট সংক্রমণ ৭ লক্ষে পৌঁছতে ভারতের সময় লেগেছে মাত্র ৪ দিন।

অন্যদিকে ভারতে ভ্যাক্সিনের ট্রায়াল শুরু হচ্ছে শীঘ্রই। ভারত বায়োটেক মানবদেহে ভ্যাক্সিন পরীক্ষার অনুমতি পেয়েছে। জানা যাচ্ছে, প্রাথমিকভাবে ১১০০ জনের শরীরে এই প্রতিষেধক পরীক্ষা হবে।

আগামী সপ্তাহেই হবে প্রথম ট্রায়াল। ১৩ জুলাইয়ের মধ্যে এনরোলমেন্ট প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে হবে। ফেজ ওয়ানের ফলাফল সামনে আসলে পরের ধাপে পরীক্ষা হবে। ১২টি ইনস্টিটিউট বেছে নেওয়া হয়েছে ট্রায়ালের জন্য। এর মধ্যে রয়েছে দিল্লি ও পাটনার এইমস।

সরকারের তরফে বলা হয়েছিল, আগামী ১৫ অগাস্টের মধ্যে করোনা ভ্যাক্সিন আসবে। যদিও সরকারের এই দাবির তীব্র বিরোধিতা করেছেন বিজ্ঞানীরা।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ