ফাইল ছবি

ইম্ফল: গতমাসেই সেরা থানার শিরোপা পেয়েছিল মণিপুরের এক পুলিশ স্টেশন। সেই থানা থেকেই মাদকচক্রে জড়িত থাকার অভিযোগে রবিবার চারজন পুলিশকর্মীকে গ্রেফতার করা হল। মাদকচক্রের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে তেনুগোপাল জেলার পুলিশ সুপার বিক্রমজিত একজন সাব ইন্সপেক্টর-সহ তিন জন পুলিশকর্মীকে বরখাস্ত করার নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে জেলা পুলিশ প্রধান এলএম খাউটেও পুলিশকর্মীদের বিরুদ্ধে বরখাস্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

জেলা পুলিশ প্রধান খাউটে ১৪ নভেম্বর একটি আদেশ জারি করেন। এই আদেশেই শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ‘সন্দেহজনক গতিবিধি এবং কর্তব্যে গাফিলতির’ অভিযোগে এনেছেন তিনি। মাদকচক্রে যে চারজন পুলিশকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে তাঁরা হলেন, ইন্সপেক্টর লেটখোহাও ভাইপেই, আসিস্ট্যান্ট সাব ইন্সপেক্টর টি পাওমিনলুন হাওকিপ, হেড কনস্টেবল মহম্মদ খলিলুপ এবং কনস্টেবল ড্রাইভার লাকসন কম। ধৃতেরা প্রত্যেকেই মোরে পুলিশ স্টেশনের কর্মী।

পুলিশ সূত্রে খবর ১২ নভেম্বর মায়নমারের সীমান্তবর্তী শহর মোরের একটি বাড়ি থেকে ৩৪টি বাক্সে নিষিদ্ধ মাদক কেটামাইন ইঞ্জেকশনের বোতল পাওয়া যায়। এই অভিযোগেই মোট চারজন পুলিশকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়। ধৃতদের মধ্যে ইন্সপেক্টর লেটখোয়াওকে আগামী ২০ নভেম্বর পর্যন্ত হেফাজতে পাঠিয়েছে বিশেষ আদালত। একই সঙ্গে ধৃত আরও তিন জনকে ১৮ নভেম্বর পর্যন্ত হেফাজতের নির্দেশ দেয় আদালত।

এই প্রসঙ্গে পুলিশ প্রধান জানান, ‘তদন্ত চলছে, এখনই এই বিষয়ে এর থেকে বেশি কিছু বলা সম্ভব নয়।’ গত মাসেই ১২৮তম মণিপুর পুলিশ দিবসে মোরের এই থানাকে সেরা থানার শিরোপা দেওয়া হয় আর একমাস কাটতে না কাটতেই এই ঘটনায় বিস্মিত স্থানীয় সাধারণ মানুষ।