মুম্বই : রিজার্ভ ব্যাংকের হিসাব জানিয়েছে, ব্যাংকগুলির দেওয়া ১০০ লক্ষ কোটি টাকার ঋণের মধ্যে ৩৮.৬৮ লক্ষ কোটি টাকা ছ’মাসের মোরাটোরিয়ামের আওতায় রয়েছে। করোনা ভাইরাসকে আটকাতে লকডাউন চালু হওয়ায় রিলিফ প্যাকেজ হিসেবে ঋণ পরিশোধের ক্ষেত্রে মোরাটোরিয়াম ঘোষণা করা হয়েছিল।

কর্পোরেট খুচরো ঋণ গ্রহীতার কাছ থেকে গড়ে ৬৫ শতাংশ মোরাটোরিয়াম এর জন্য অনুরোধ এসেছে, যাদের ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর ঋণ বাবদ পাওনা ছিল ৬০ লক্ষ কোটি টাকা। যা থেকে বাদ রাখা হয়েছে কার্যকরী মূলধনের জন্য নেওয়া ঋণ যা দেওয়া হয়েছে ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে মার্চ। এরই ভিত্তিতে হিসেব কষেছে রিজার্ভ ব্যাংক।

বেশিরভাগ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক এবার ঘোষণা করতে চলেছে কতটা ঋণ এই মোরাটোরিয়ামের আওতায় রয়েছে। দুটি বৃহৎ ব্যাংক ঘোষণা করেছে মোরাটোরিয়ামে থাকা ঋণের পরিমাণ এর থেকে বেশি। ব্যাঙ্ক অফ বরোদা ঘোষণা করেছে, মোটের উপর ৬৫ শতাংশ ঋণ রয়েছে মোরাটোরিয়ামে।

অন্যদিকে আইডিবিআই ব্যাঙ্ক জানিয়েছে তাদের ক্ষেত্রে অংকটা ৬৫-৭০ শতাংশ। স্মল ফিনান্স ব্যাঙ্ক যেগুলো ক্ষুদ্রঋণ দিয়ে থাকে তাদের ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে ৯০ শতাংশ ক্ষুদ্র ঋণ গ্রহীতারা মোরাটোরিয়ামের সুবিধা নিয়েছে। অন্যদিকে পুরনো বেসরকারি ব্যাংক লক্ষ্য করেছে ঋণগ্রহীতাদের একটা বড় অংশ এই মোরাটোরিয়ামের সুযোগ নিয়েছে। বেসরকারি ব্যাংকের ৩০ শতাংশ মোরাটোরিয়াম নেওয়ার কথা এপ্রিল-মে মাসে জানিয়েছিল।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প