ঢাকা: আফ্রিকার লিবিয়া থেকে ভূমধ্যসাগর পার করে ইউরোপের ইতালিতে ঢুকে পড়া অনুপ্রবেশকারীদের বেশিরভাগই মারা যান নৌকাডুবির ঘটনা৷ একইরকম ঘটনায় মহাসাগরে ডুবে যাওয়া নৌকায় ঠিক কত জন বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী ছিলেন তা নিয়ে সঠিক তথ্য এখনও পায়নি বাংলাদেশ সরকার৷ ঢাকায় সাংবাদিক সম্মেলনে এমন জানালেন বিদেশমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন৷

এই দুর্ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই সর্বশেষ পরিস্থিতি জানতে চাইছেন সেই নৌকায় থাকা বাংলাদেশিদের আত্মীয়রা৷ এখনও পর্যন্ত জানা গিয়েছে, ভূমধ্যসাগরে এই নৌকা ডুবিতে নিহতের তালিকায় রয়েছেন সিলেটের পাঁচ যুবক৷ সর্বশেষ খবর অন্তত ৩৭ জন অনুপ্রবেশকারী বাংলাদেশি মারা গিয়েছেন৷ বিবিসি সহ একাধিক সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, গত বৃহস্পতিবার রাতে টিউনিসিয়ার উপকূলের কাছে ভূমধ্যসাগরে একটি নৌকা ডুবে যায়। এই নৌকাডুবিতে নিহত ৬০ জনের মধ্যে অধিকাংশই বাংলাদেশি। অনুপ্রবেশকারীরা আফ্রিকা থেকে পালিয়ে বেআইনিভাবে ইউরোপে ঢুকতে চাইছিল৷৷

লিবিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাস ইতিমধ্যেই নৌকাডুবিতে ৩৭ জন বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন বলে খবর এসেছে। তবে সাংবাদিক সম্মেলনে বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী বলেন, নিশ্চিত কোনও তথ্য এখনও আসেনি৷ পাননি তিনি। যেহেতু ৩৭ জনকে পাওয়া যাচ্ছে না, সে ক্ষেত্রে ৩০ থেকে ৩৫ জন মারা গেছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, এই ঘটনা জানার পর সেখানকার দূতাবাস থেকে এক কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে চলে গেছেন। যাঁরা নিখোঁজ, তাঁদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। উদ্ধার হওয়ার ব্যক্তিদের দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা হচ্ছে।

আল জাজিরা, এপি, এএফপি সংবাদ সংস্থা জানাচ্ছে, আফ্রিকার দেশ টিউনিসিয়ার উপকূলের কাছে সেই অনুপ্রবেশকারীদের নৌকা ডুবে গিয়েছে৷ নৌকাটিতে প্রায় ৭৫ জন যাত্রী ছিল। তারা সবাই পুরুষ। তাদের মধ্যে ৫১ জনই বাংলাদেশি। এএফপি জানাচ্ছে, টিউনিসিয়ার জেলেরা ডুবে যাওয়া নৌকা থেকে ১৬ জনকে উদ্ধার করেন। তাদের মধ্যে রয়েছে এক শিশু সহ ১৪ জন বাংলাদেশি।