তমলুক: মন্দারমণি থেকে কলকাতা ফেরার পথে পর্যটক বোঝাই গাড়ি উল্টে জখম হলেন ১৫ জন যাত্রী। রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে, দীঘা-নন্দকুমার ৪১ নম্বর জাতীয় সড়কে তমলুকের কাকগেছিয়ায়।

জানা গিয়েছে, রবিবার রাতে কাকগেছিয়া এলাকায় একটি পর্যটক বোঝাই গাড়ি লরিকে পাশ দিতে গিয়ে উল্টে যায়। ঘটনাস্থলে পড়ে গিয়ে জখম হন ১৫ জন যাত্রী। তাঁদের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা ছুটে এসে উদ্ধার কাজে হাত লাগান। এরপর খবর দেওয়া হয় পুলিশে। পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দাদের সাহায্যে দ্রুত আহতদের উদ্ধার করে তমলুক জেলা হাসপাতালে পাঠানো।

সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাঁদের ছেঁড়ে দেওয়া হয়। এদিকে এই ঘটনায় কিছুক্ষনের জন্য অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে জাতীয় সড়ক। পরে তমলুক থানার পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

দ্বিতীয় দুর্ঘটনাটি ঘটে, পাঁশকুড়ার কোলিশ্বরে। রাঁচি থেকে ফেরার পথে একটি যাত্রী বোঝাই বাস উল্টে আহত হয়েছে ২০ জন যাত্রী। সোমবার ভোর সাড়ে ৪ টা নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে,পাঁশকুড়ার কোলিশ্বরে। চালক ঘুমিয়ে পড়ার কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন বাসের যাত্রীরা।

জানা গিয়েছে, ৭০ জন যাত্রী নিয়ে বাসটি রাঁচি থেকে কলকাতার দিকে আসছিল। পূর্বমেদিনীপুরের পাঁশকুড়ার কোলিশ্বরের কাছে বাসের চালক ঘুমিয়ে পড়ায় দুর্ঘটনাটি ঘটে। এই ঘটনায় মোট ২০ জন আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে পাঁশকুড়া থানার পুলিশ গিয়ে দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়িটিকে উদ্ধার করে। এবং আহতদের পাঁশকুড়া সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করে। সেখানে তিনজনের অবস্থা আরও আশঙ্কাজনক হওয়ায়, তাঁদের তমলুক জেলা হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।