নয়াদিল্লি: হিমাচল প্রদেশে ট্রেকিংয়ে গিয়ে নিখোঁজ ৩৫জন আইআইটি পড়ুয়া৷ লাহোল-স্পীতিতে ট্রেকিংয়ে গিয়েছিলেন তাঁরা৷ দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে এই বিপদ৷ সূত্রের খবর, হিমাচলের দুর্যোগে পড়ে ইতিমধ্যে প্রায় ৪৫জনের খোঁজ মিলছে না৷ উল্লেখ্য, গত কয়েক ঘণ্টা ধরে টানা বৃষ্টি, তুষারপাতের কারণে হিমাচল প্রদেশের ছবিটা ক্রমেই বিপজ্জনক হয়ে উঠছে৷ পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে সোমবার ন’টি জেলার অধিকাংশ স্কুল, কলেজ, সরকারি দফতর বন্ধ রাখা হয়৷

আরও পড়ুন: ব্যান্ডেজ বাঁধার জায়গা পাবেন না, তৃণমূলকে শাসানি দিলীপের

নিখোঁজ এক ছাত্রের বাবা রাজবীর সিং এএনআইকে জানিয়েছেন, হাম্পটা পাসে ট্রেকিংয়ের জন্য তাঁর ছেলে একটি দলের সঙ্গে বেরিয়েছে৷ মানালির এক নামজাদা ট্যুরিস্ট হাবে তাদের থাকার কথা৷ কিন্তু গ্রুপের সঙ্গে তারা এখন আর যোগাযোগ করতে পারছে না৷

ভারী বৃষ্টি, তুষারপাতে বিপর্যস্ত স্বর্গরাজ্য৷ এখনও অবধি পাওয়া খবরে দুর্যোগের কবলে পড়ে কমপক্ষে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে৷ এরমধ্যে একজন নাবালিকাও রয়েছে৷ বহু মানুষ জখম৷ বিশেষ করে কুলু, কাংরা, চাম্বা জেলার ছবিটা মারাত্মক৷ রাস্তা বন্ধ, কোথাও বা ধস নেমেছে৷

কাংরা, কুলু ও হামিরপুর জেলায় স্কুলগুলি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ বাড়ছে নদীর জলস্তর৷ ফুলে ফেঁপে উঠছে পাহাড়ি নদীগুলি৷ ফুঁসছে পাহাড়ি ঝোড়া৷ নাহাদ খাদে তুলিয়ে যাওয়ার খবর মিলেছে৷ বহু ঘর ভেসে গিয়েছে বানের জলে৷ বনমন্ত্রী গোবিন্দ সিং ঠাকুর জানান, নদীর ধারে যেন কেউ না যান সেই সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে৷ কুলুতে ‘হাই অ্যালার্ট’ জারি করা হয়েছে৷

আরও পড়ুন: মঙ্গলবারও লিটার প্রতি ১৪ পয়সা বাড়ল পেট্রলের দাম

প্রায় ২০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি ইতিমধ্যেই সেখানে হয়েছে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর৷ প্যারাগ্লাইডিং-সহ বিভিন্ন অ্যাডভেঞ্চারার্স স্পোর্টস অ্যাকটিভিটিজ আপাতত ব্যান করে দেওয়া হয়েছে কুলুতে৷ ভারী বৃষ্টির করাল গ্রাসে এ রাজ্যের ১২ জেলার ১০টিই৷ মানালির অবস্থা তো আরও খারাপ৷ রাজ্যের সঙ্গে সম্পর্কই বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে৷ ধস নেমে বহু রাস্তা বন্ধ৷