ত্রিপুরা: বিএসএফের গুলিতে তিন উপজাতির মৃত্যুর জেরে বনধ

আগরতলা: বিএসএফের গুলিতে এক মহিলা সহ তিন উপজাতির মৃত্যুর জেরে থমথমে পরিস্থিতি ত্রিপুরার সাব্রুমে৷ রাজধানী শহর আগরতলাতেও তার উত্তাপ লেগেছে৷ ক্ষুব্ধ সাব্রুমবাসী বনধ পালন করছেন৷ ১২ ঘণ্টার বনধের ডাক দিয়েছে রাজ্যে ক্ষমতাসীন দল সিপিএমের সাব্রুম মহকুমা কমিটি৷ মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের নির্দেশে ঘটনাস্থলে পৌঁছে তথ্য সংগ্রহ করছেন রাজ্যের মুখ্যসচিব সঞ্জীব রঞ্জন ও রাজ্য পুলিশের মহানির্দেশক কে নাগরাজ৷ ঘটনার পর থেকেই নীরব বিএসএফ৷

শুক্রবারের ঘটনা৷ ঘটনাস্থল বাংলাদেশ লাগোয়া ত্রিপুরার সাব্রুমের চিত্তাবাড়ি৷ স্থানীয় একটি রাবার বাগানে কাজ করছিলেন উপজাতি সম্প্রদায়ের কয়েকজন৷ অভিযোগ, সেই সময় সুরলক্ষ্মী ত্রিপুরা নামে এক মহিলাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে বিএসএফ। বাধা দিতে যান গ্রামবাসীরা।

এরপরেই দুপক্ষের সংঘর্ষ শুরু হয়৷ আচমকা গুলি চালায় বিএসএফ জওয়ানরা৷ সীমান্তরক্ষী বাহিনীর অভিযোগ, বাংলাদেশে গোরু পাচার আটকাতেই গুলি চালানো হয়েছে৷ গুলি লেগে ঘটনাস্থলেই তিন গ্রামবাসীর মৃত্যু হয়৷ নিহতদের নাম সুরলক্ষ্মী ত্রিপুরা, পদ্মকুমার ত্রিপুরা ও মীন ত্রিপুরা৷ জখম হয়েছেন আরও দুই গ্রামবাসী৷ তাদের নামে জীবন ত্রিপুরা ও শ্যামকুমার ত্রিপুরা তাঁদের চিকিৎসা সাব্রুম হাসপাতালে৷ খবর পেয়ে বিকেলের কিছু পরেই চিত্তাবাড়িতে পৌঁছান জেলা পুলিস সুপার তাপন দেববর্মা ও বিএসএফের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা৷ ঘটনার পর থেকেই তীব্র উত্তেজনা সাব্রুমে৷