হিসার: একদিকে আতঙ্কের পরিস্থিতি কাশ্মীরে। অমরনাথ যাত্রীদের জরুরিকালীন তৎপরতায় ফিরিয়ে আনা হচ্ছে কাশ্মীর থেকে। গোয়েন্দাদের কাছে খবর আছে, ভারতের মাটিতে বড়সড় নাশকতার ছক কষছে পাকিস্তান। এরই মধ্যে দেশের ভিতর থেকেই ধরা পড়ল তিন পাক চর।

ভারতীয় সেনার গোপন তথ্য পাচার করা হচ্ছিল, সেটা জানতে পেরেই হরিয়ানাক থেকে ওই তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরা একাধিক স্পর্শকাতর তথ্য পাকিস্তানি হ্যান্ডলারের হাতে তুলে দিচ্ছিল বলে জানা গিয়েছে। ধৃতরা হল রাগিব, মেহতাব ও খালিদ। এরা সবাই উত্তরপ্রদেশের মুজফফরনগরে থাকে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: যত দ্রুত সম্ভব কাশ্মীর ছাড়ুন, নির্দেশ অমরনাথ যাত্রীদের

আর্মি ক্যান্টমেন্ট এলাকায় বিভিন্ন বিল্ডিং তৈরিতে শ্রিমের কাজ করত এরা। তাদের পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

শুধু গোয়েন্দা রিপোর্ট নয়, পাকিস্তানে তৈরি অস্ত্রও উদ্ধার হয়েছে কাশ্মীর থেকে। তাই, দ্রুত যাত্রীদের ফিরে আসার নির্দেশ দেওয়া হল। এর আগে কখনও যাত্রীদের এভাবে কাশ্মীর ছাড়তে বলা হয়নি।

শুক্রবার সেই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, ‘গোয়েন্দা রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে জানা গিয়েছে অমতনাথ যাত্রীদের টার্গেট করেছে পাক জঙ্গিরা। তাই যাত্রীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে বলা হচ্ছে, কাশ্মীর দ্রুত ছাড়ুন।’

আরও পড়ুন: কাশ্মীর থেকে উদ্ধার পাকিস্তানের অস্ত্র কারখানার ল্যাণ্ডমাইন : সেনা

অমরনাথ যাত্রীদের নিশানা করে এই হামলার ছক কষা হয়েছিল বলে জানানো হয় ভারতীয় সেনার পক্ষ থেকে৷ যে ধরণের একাধিক আইইডি মিলেছে, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানানো হয়৷ ভারতীয় সেনা এদিন সাংবাদিক বৈঠকে পরিষ্কার জানিয়ে দেয়, ভারতের দীর্ঘদিনের অভিযোগ পুরোপুরি সত্য৷ কাশ্মীরে সন্ত্রাস ছড়ানোর চেষ্টা করছে পাকিস্তান৷

তবে কাশ্মীরে শান্তি বজায় রাখতে ভারতীয় সেনা যে বদ্ধপরিকর, তা এদিন জানিয়ে দেন চিনার কর্পস কমাণ্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কেজিএস ধিলোন৷ তিনি জানান, জঙ্গি ঘাঁটিতে তল্লাশি চালিয়ে ভারতীয় সেনা, স্নাইপার যেমন উদ্ধার করেছে, তেমনই উদ্ধার করা হয়েছে টেলিস্কোপ, অমরনাথ যাত্রার রুটম্যাপ৷