স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: দুটি এটিএমে টাকা লুটের ঘটনায় জলপাইগুড়ি কোতোয়ালী থানার পুলিশ মোট তিন জনকে গ্রেফতার করল। ধৃত তিন জন-ই  আন্তঃরাজ্য চুরি ও এটিএম লুটের ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। ধৃত তিন জনকে জলপাইগুড়ি জেলা আদালতে তোলা হয়। বাকি আরও দুই অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।শনিবার রাতে জলপাইগুড়ি নেতাজি পাড়া এলাকায় একটি অন্ধকারগলিতে জড়ো হয়েছিল এই দুষ্কৃতী দলটি। শহরে ফের কোনও এটিএমলুটের জন্য এই দলটি এসেছিল বলে পুলিশের অনুমান।

জলপাইগুড়িকোতোয়ালী থানার আইসি বিশ্বাশ্রয় সরকার বিশাল পুলিশ বাহিনী নিয়ে অভিযানে নেমে দুজনকে গ্রেফতার করে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,ধৃতরা হল দক্ষিণ দিনাজপুরের বুনিয়াদপুরের প্রবীন বর্মণ ও বিহারের মহম্মদ মঞ্জরুল আনসারি। এই দলটিকে সাহায্য করার অভিযোগে জলপাইগুড়ি মোহিত নগর এলাকার বাসিন্দা দিগন্ত সরকার নামক এক যুবকে গ্রেফতার করা হয়। বাকি আরও দুই অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: রামুয়া খুনে গ্রেফতার স্ত্রী কাজলের প্রেমিক

ধৃত দুজনের কাছ থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র ও বেশ কিছু গাঁজা উদ্ধার করেছে পুলিশ। জলপাইগুড়ি জেলা আদালতে রবিবার তিন জনকে তোলা হয়েছে। পুলিশ ধৃত তিন জনকে ১৪ দিনের হেফাজত চেয়েআদালতের কাছে আবেদন করেছে। ২০১৮ সালে ৮ অক্টোবর ও চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারিতে গ্যাস কাটার দিয়ে জলপাইগুড়ি শহর সংলগ্ন ৭৩ মোড় ও পাহাড়পুর কালিয়াগঞ্জ এলাকায় দুটি এটিএমে চুড়ির ঘটনা ঘটে।

২০১৮ সালে ৮ অক্টোবর ৭৩ মোড়ের স্টেট ব্যাংকের একটি এটিএম গ্যাস কাটার দিয়ে কেটে মোট ১৬ লক্ষ টাকা লুট হয়। ১৪ জানুয়ারি কালিয়াগঞ্জ এলাকায় একটি এটিএমে টাকা লুটের জন্য গ্যাস কাটার দিয়ে কাটতে গিয়ে আগুন লেগে ধরে যায় মেশিনটিতে। জলপাইগুড়ি কোতোয়ালী থানার পুলিশ রাতে টহল দেওয়ার সময় দেখতে পান এটিএমে আগুন৷ দেখা মাত্রই লুটেরাদের পিছনে ধাওয়া করে। কালো একটি ইনোভা গাড়িতে ছিল এই আন্তঃরাজ্য দলটির লোকেরা। সেই কালো ইনোভা গাড়ির সূত্রধরে অভিযানে নামে পুলিশ।