নয়াদিল্লি: ভয়াল রূপ ধরে আছড়ে পড়েছে ঘূর্ণিঝড় আমফান। এত ভয়ঙ্কর ঝড় আগে বোধ হয় দেখেনি বাংলা। আর সেই ঝড়ে ক্ষতিও হয়েছে অনেক।

বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত পাওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, ভারত ও বাংলাদেশ মিলিয়ে অন্তত ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। সংবাদসংস্থা পিটিআই ও এপি-র রিপোর্ট বলছে, বাংলাদেশে অন্তত ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গে আরও ১০ জনের ও ওডিশায় দু’জনের।

এদিকে, পশ্চিমবঙ্গের এই ক্ষতিতে সমবেদনা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পাশে থাকার বার্তাও দিয়েছেন তিনি।

রাজ্যে মোট ১০-১২ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। খাস কলকাতায় দু’জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। রিজেন্ট পার্কে গাছ পড়ে মৃত্যু হয়েছে মা ও ছেলের। বজবজে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। হাওড়ায় এক তরুণীর মাথায় টিন পড়ে মৃত্যু হয়। এছাড়া শ্রীরামপুর, মিনাখাঁ থেকেও মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে।

বলেন, ”সব রাস্তা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। সব ব্রিজ বন্ধ। ইলেকট্রিসিটি পুরো শেষ, জলের সংযোগ শেষ। কৃষি ক্ষেত্র সম্পূর্ণ বিপর্যস্ত।’

খারাপ পরিস্থিতিতে মানুষের কাছে সাহায্যের আর্জি জানিয়েছেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, রাজ্যে তিনটি কঠিন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। প্রথমটা হল করোনা, দ্বিতীয়টা হল পরিযায়ী শ্রমিক ও তৃতীয় এই আমফান। এতটা ক্ষতি হবে, এমনটা আশা করেননি বলে দাবি করেম মুখ্যমন্ত্রী। পরিযায়ী শ্রমিকদের কোথায়, কিভাবে রাখবেন সেই উদ্বেগের কথাও প্রকাশ করেন মমতা।

রাজনীতি না করে কেন্দ্রের কাছে সাহায্যের আর্জিও জানান তিনি। সব ঠিক করতে ৪-৫ দিন সময় লাগবে বলেও উল্লেখ করেছেন।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV