দামাস্কাস: তুরস্কর বোমারু বিমান হামলায় সিরিয়ায় ২৪ জন সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে৷ এদের মধ্যে ১১ জন শিশু রয়েছে বলে আন্তর্জাতিক এক সংবাদসংস্থা সূত্রে খবর৷ যদিও এই দাবি মানতে নারাজ তুরস্কের সেনাবাহিনী৷ তাদের পাল্টা দাবি, আল-বাব এলাকাটি জঙ্গি অধ্যুষিত এলাকা৷ সেখানে তুর্কি জওয়ানরা যে বিমান হামলা চালিয়েছে তাতে আইসিস জঙ্গিরাই খতম হয়েছে৷

তুরস্কের এই আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সিরিয়ার মানবাধিকার কমিশন৷ তাদের দাবি, গত ২৪ ঘণ্টা ধরে বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে তুরস্ক সেনা৷ একের পর এক বোমা হামলায় ১১টি শিশুর মৃত্যু হয়েছে৷ যা অনৈতিক৷ অন্যদিকে তুরস্ক সেনাবাহিনীর দাবি, সিরিয়ার উত্তর প্রান্তে আল-বাব শহর জঙ্গিদের শক্ত ঘাঁটি৷ সেখানে আইসিস জঙ্গি সংগঠনের একাধিক সদস্য লুকিয়ে ছিল৷ সেই খবর পেয়েই হামলা চালায় সেনা৷ তাতেই ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ এরা প্রত্যেকেই জঙ্গি সংগঠনের সদস্য৷

আল-বাব শহর ইসলামিক জঙ্গি-গোষ্ঠীর একটি শক্তিশালী ঘাঁটি৷ এখানে একাধিকার তুরস্ক সেনা আক্রমণ করলে জঙ্গিদের সঙ্গে তুর্কি সেনাবাহিনীর সংঘর্ষ বাধে৷ সম্প্রতি কয়েক মাস আগে সিরিয়ার বিদ্রোহীরা আইসিস জঙ্গি গোষ্ঠীর সঙ্গে জুড়ে গেলে শক্তি বাড়ে ইসলামপন্থী এই জঙ্গি সংগঠনের৷ এদিন তাই পরিকল্পনা করে বড়সড় হামলা চালায় তুরস্ক৷ আর তাতেই ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ এই বিষয়ে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদ্রিম জানিয়েছেন, আগের থেকে পরিস্থিতি এখন বেশ খানিকটা নিয়ন্ত্রনে৷

তবে আগস্ট থেকে লাগাতার জঙ্গি দমন অভিযান শুরু করেছে তুরস্ক৷ আইএস জঙ্গি গোষ্ঠী এবং কুর্দিশদের পুরোপুরি মুছে ফেলতেই এই অভিযান৷ ২০১১সাল খেকে চলা এই জঙ্গি ও সেনার গুলিতে নিহত হয়েছে প্রায় তিন লক্ষেরও বেশি মানুষ৷ সেনা-জঙ্গি লড়াইয়ে দেশের প্রায় অর্ধেক মানুষই ভিটেমাটি হারা হয়েছেন৷ অপরদিকে ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের বিভিন্ন প্রলোভনে এই নাশকতার কাজে নিয়ে আসা হয়৷