নিউ ইয়র্ক: বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করতে রেস্টুরেন্টে যান গুরবিন্দর গ্রেওয়াল৷ কিন্তু রেস্টুরেন্টের ফটকে তাঁকে আটকে দেওয়া হয়৷ কারণ হিসাবে গুরমিন্দরকে জানানো হয় সে পাগড়ি পরে আছে৷ পাগড়ি পরে রেস্টুরেন্টে ঢোকা যাবে না৷ আমেরিকায় শিখরা আগেও বর্ণবৈষম্যের শিকার হয়েছে৷ এই ঘটনা সেই তালিকার নয়া সংযোজন৷

২৩ বছরের গুরমিতও এই ঘটনায় যতটা হতবাক ততটাই মর্মাহত৷ জানিয়েছেন, আগে কখনও এই ধরনের ঘটনার মুখোমুখি হতে হয়নি৷ পাগড়ি পরার জন্য রেস্টুরেন্টে ঢুকতে না দেওয়ার ঘটনা সত্যিই দুর্ভাগ্যজনক৷

স্টোনি ব্রুক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র গুরমিত শনিবার রাতে বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করতে পোর্ট জেফারসনের হারবার গ্রিল রেস্টুরেন্টে যান৷ কিন্তু তাঁর জানা ছিল না রেস্টুরেন্টের নতুন নিয়ম৷ সেখানে বলা হয়েছে, মাথায় টুপি বা পাগড়ি জাতীয় জিনিস পড়ে রেস্টুরেন্টে ঢোকা যাবে না৷ যদিও তিনি রেস্টুরেন্টের ম্যানেজারকে অনেক বোঝানোর চেষ্টা করেন৷ কিন্তু তিনি গুরমিতের কোনও কথা না শুনে রেস্টুরেন্টের নতুন পলিসি বোঝাতে শুরু করেন৷

এই নিয়ে বিতর্কের ঝড় ওঠে মার্কিন মুলুকে৷ রেস্টুরেন্টের এই অমানবিক আচরণের বিরুদ্ধে শিখরা বিক্ষোভ দেখান৷ তাদের বিক্ষোভ প্রশমিত করতে পরে ফেসবুকে রেস্টুরেন্টের তরফে ক্ষমা চেয়ে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, গুরমিত যেটা পরেছিল সেটা এক বিশেষ ধরনের টুপি৷ ঐতিহ্যবাহী পাগড়ি নয়৷ আর উইকএন্ডে কোনও ধরনের টুপি পরে রেস্টুরেন্টে ঢোকা এখন নিষিদ্ধ৷ তবে অন্য দিনের ক্ষেত্রে এই নিয়ম খাটবে না৷ সেই সঙ্গে সব ধর্মের প্রতি তারা শ্রদ্ধাশীল বলেও জানায়৷ রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ ক্ষমা চেয়ে নেওয়ায় আর পুলিশে অভিযোগ জানাননি গুরমিত৷