তিরুঅনন্তপুরম: দেশের একমাত্র বাম শাসিত রাজ্য কেরলের পুর ও পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিপুল জয় পেয়েছে সিপিআইএম নেতৃত্বে চলা এলডিএফ সরকার। এর পরেই আরও এক চমক। রাজধানী তিরুঅনন্তপুরমের পুর নিগমটি পরিচালনা করার জন্য মেয়র পদে বেছে নেওয়া হলো বছর একুশের আর্য রাজেন্দ্রন কে। তিনিই দেশের কনিষ্ঠতম মেয়র বলে আলোচিত হচ্ছেন।

সিপিআইএমের ছাত্র শাখা এসএফআই থেকে উঠে এসেছেন আর্য রাজেন্দ্রন। নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর মেয়র পদে তাঁর নাম উঠবে ভাবতেও পারেননি। দল তাঁর নাম মেয়র পদে অনুমোদন করতেই কেরল থেকে জাতীয় রাজনীতি সরগরম।

আর্য রাজেন্দ্রনের বয়সী আর কেউ দেশের কোনও পুরনিগমের মেয়র পদে বসেননি। তাও আবার দেশের অন্যতম প্রেস্টিজিয়াস পুর নিগমের মেয়র হতে চলেছেন তিনি। কেরল তো বটেই দক্ষিণ ভারতের অন্যতম পুরনিগম হল তিরুঅনন্তপুরম।

কেরলের রাজধানী শহরটির পুরনিগম আন্তর্জাতিক মহলে সুপরিচিত। পর্যটন ও বাণিজ্যের সুবাদে তিরুঅনন্তপুরম থেকে দক্ষিণ ভারতের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত হয়। সেই পুরনিগমের মেয়র হিসেবে আর্য রাজেন্দ্রন দায়িত্ব সামলাবেন।

সদ্য শেষ হওয়া পুর ও পঞ্চায়েত নির্বাচনের হিসেব বলছে,লোকসভা ভোটের পর থেকেই কেরলে বেড়েছে বামেদের জনপ্রিয়তা। স্থানীয় নির্বাচনের ফলাফলে মিলছে সেই ইঙ্গিত। মোট ৯৪১টি আসনের মধ্যে ৫১৪টি পেয়েছে এলডিএফ। ৩৭৭ টি পেয়েছে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউডিএফ। বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ পেয়েছে ২৫টি। ২৯ টি আসন অন্যান্যদের দখলে। ৬টি কর্পোরেশন ভোটের চারটি সিপিআইএমের দখলে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।