কলম্বো: ২০১১ ভারতের মাটিতে ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনাল নাকি আয়োজক দেশকে বেচে দিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। দিনকয়েক আগে এমনই মন্তব্যে শোরগোল ফেলে দিয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার তৎকালীন ক্রীড়ামন্ত্রী মহিন্দানন্দা আলুথগামাগে। প্রাক্তন ক্রীড়ামন্ত্রীর এহেন অভিযোগকে হালকাভাবে নেয়নি দ্বীপরাষ্ট্রের ক্রীড়ামন্ত্রক। ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনাল নিয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্তের নির্দেশ ইতিমধ্যেই দিয়েছে তারা।

এমন সময় ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে মত বদল করে বসলেন আলুথগামাগে। জানালেন, আমি কেবল ম্যাচ ফিক্সিং’য়ের ব্যাপারে আমার সন্দেহের কথা জানিয়েছিলাম। স্থানীয় সাংবাদিকদের বুধবার তিনি বলেছেন, ‘বিশ্বকাপ ঘিরে আমার যে সন্দেহ ছিল তার তদন্ত হোক। আমি এমনটাই জানিয়েছিলাম।’ আলুথগামাগে আরও জানান, ‘এবিষয়ে আমি আমার অভিযোগের কপি পুলিশকে জমা দিয়েছিলেন ৩০ অক্টোবর, ২০১১। তখন আমি ক্রীড়ামন্ত্রী পদে বহাল ছিলাম।’

উল্লেখ্য, ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনাল ম্যাচে গড়াপেটার অভিযোগ তুলে দিন সাতেক আগে সুর চড়িয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার তৎকালীন ক্রীড়ামন্ত্রী মহিন্দানন্দা আলুথগামাগে। গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় এক সংবাদমাধ্যমে আলুথগামাগে অভিযোগ করে জানান, ‘২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালে গড়াপেটা হয়েছিল। আমি দায়িত্ব নিয়েই এই অভিযোগ করছি। প্রয়োজনে আমি বিতর্কেও রাজি। আমি ক্রিকেটারদের সরাসরি এই অভিযোগে অভিযুক্ত করছি না। কিন্তু একটা গোষ্ঠী এই ম্যাচ ফিক্সিংয়ে যুক্ত ছিল।’

আলুথগামাগে আরও জানান, ‘আমি আমার বক্তব্য থেকে একটুও নড়ব না। আমি জানি কারণ ঘটনাটা আমি ক্রীড়ামন্ত্রী থাকাকালীন ঘটেছিল। আমি গোটা ঘটনাটা প্রকাশ্যে আনতে চাই না দেশের স্বার্থে। ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালে ম্যাচটা আমরা চাইলেই জিততে পারতাম। কিন্তু ওটা ফিক্সড ছিল।’ প্রাক্তন ক্রীড়ামন্ত্রীর অভিযোগকে নস্যাৎ করে দেশের প্রাক্তন অধিনায়ক মাহেলা জয়বর্ধনে জানিয়েছেন, ‘নির্বাচন বোধহয় দরজায় কড়া নাড়ছে। এসব শুনে মনে হচ্ছে সার্কাস ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে।’

প্রাক্তন ক্রীড়ামন্ত্রীর সেই অভিযোগকে গুরুত্ব দিয়ে পরদিনই ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দেন দেশের বর্তমান ক্রীড়ামন্ত্রী দালাস আলাহাপ্পেরুমা। দু’সপ্তাহ অন্তর-অন্তর তদন্তের রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয় সেদেশের ক্রীড়ামন্ত্রকের তরফ থেকে।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।