লণ্ডন: বিশ্বের সকল ভারতীয়ই রবিবার প্রজাতন্ত্র দিবস পালন করছেন। এই দিনটিকে বিশেষ করে রাখার জন্যই প্রায় ২০০০ মানুষের জমায়েত দেখা গেল টেমস তীরবর্তী লন্ডনে। তাঁরা কেউ কর্মরত আবার কেউ ওখানেই থাকেন। বিভিন্ন ক্ষেত্র থেকে আসা মানুষদের বক্তব্য একটাই, ভারতের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতা করা। পাশাপাশি ভারতে এই আইনের বিরুদ্ধে যারা প্রতিবাদ করছেন তাঁদের পাশে দাঁড়ানো।

সপ্তাহ শেষের বিক্ষোভ প্রদর্শনের কারণ ছিল “ভারতের ভেদাভেদকারি, অসাংবিধানিক আইন এবং ভারতীয় নাগরিকত্বের অন্যান্য মাপকাঠি”।

লণ্ডনের রাজপথে বড়বড় করে লেখা ‘ভারতে ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে এক হও”। এই মিছিল ডাউনিং স্ট্রিট থেকে শুরু হয়ে ভারতীয় হাই কমিশন অবধি হয়। সেখানে পৌঁছে একদল মানুষ ব্যারিকেডের মধ্যে নমাজ করেন এবং একইসঙ্গে প্রতিবাদ চলতে থাকে। যারা প্রতিবাদে সামিল হইয়েছিলেন তাঁদের তরফে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে খোলা চিঠিও লেখা হয়।

লন্ডনে বিক্ষোভ প্রদর্শনের মধ্যে উঠে আসে কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপ থেকে কাশ্মীরের নেতাদের গৃহবন্দি। এছাড়াও আসে অযোধ্যা মামলার রায় এবং সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন। নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে বিজেপি সরকারের নেওয়া সিদ্ধান্তগুলিকে সমালোচনা করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে লেখা খোলা চিঠিতে বলা হয়েছে, “সিএএ মুছে ফেলা হোক এবং এনআরসি এবং এনপিআর তুলে নেওয়া হোক”।