FILE PIC

প্যারিস: চার শিশুর যৌন হেনস্থার তদন্ত করতে গিয়ে হতবাক পুলিশ আধিকারিকরা। শিশুদের যৌন হেনস্থা করে তাঁদের নাম একটি গোপন ডায়রিতে লিখে রাখত অভিযুক্ত চিকিৎসক। ওই ডায়রি থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী এখনও পর্যন্ত প্রায় ২০০টি শিশু ওই ব্যক্তির যৌন লালসার শিকার।

১৮৮০ দশকের শেষ দিকে একসময়ে লন্ডনের বুকে ত্রাস হয়ে উঠেছিল ‘জ্যাক দ্য রিপার’। বিভিন্ন মহিলাদের ধর্ষণ করে দেহের বিভিন্ন অংশ কেটে রেখে যেত। মহিলাদের পর পর খুন করার ফলে এক সময়ে সিরিয়াল কিলার হিসাবে নাম উঠে আসে এই ‘জ্যাক দ্য রিপারের’। তবে বহু খুঁজেও তাঁর হদিশ পাননি লন্ডন পুলিশ।

কিন্তু ফরাসি এই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের তদন্তে নেমে ওই ব্যক্তির পাশবিকতায় বিস্মিত ফরাসি পুলিশ। একের পর এক শিশুদের দীর্ঘকাল ধরে যৌন হেনস্থা চালিয়ে গিয়েছিল এই অভিযুক্ত চিকিৎসক।

ফ্রান্সের চিকিৎসক জয়েল লে সৌসামেকের বিরুদ্ধে প্রথম অভিযোগটি জমা পড়ে ২০১৭ সালে। ওই সময়ে অভিযুক্ত চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ছ’বছরের শিশুকন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগ আনে স্থানীয় একটি পরিবার। এই মামলাটির তদন্ত চলছিল। আর এই মামলার তদন্ত চালাতে গিয়েই হতবাক হয়ে গিয়েছেন পুলিশ আধিকারিকেরা।

পুলিশ সূত্রে খবর, অভিযুক্ত চিকিৎসকের ডায়রিতে থাকা প্রতিটি শিশুর ওপরেই যৌন নিপীড়ন চালিয়েছিল সে।
নিজের ডাক্তারি জীবনের প্রায় ৩০ বছর ধরে এই ধরনের দুষ্কর্ম করেছে সে।

ইতিমধ্যেই পুলিশ যৌন হেনস্থার শিকার প্রায় ১৮০ জন নিপীড়িতার বয়ান নিয়েছে। ৩০ বছর ধরে এই অপকর্ম চালানোর জেরে সে দেশের বহু মানুষই তাঁকে ‘ফ্রান্সের সিরিয়াল রেপিষ্ট’ বলে আখ্যা দিয়েছেন।

আদালতকে পুলিশ জানিয়েছে এখনও পর্যন্ত প্রায় ১৮১ জন ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে তাদের ছোটবেলায় ঘটে যাওয়া যৌন হেনস্থার কথা জানিয়েছেন।