নয়াদিল্লি: ফের কালির ছিটে ঐতিহ্যের রাজধানী এক্সপ্রেসের গায়ে৷ ট্রেনের খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ল কমপক্ষে ২০ জন যাত্রী৷ নয়াদিল্লি-ভুবনেশ্বর রাজধানী এক্সপ্রেসে রবিবার এই ঘটনাটি ঘটেছে৷

অসুস্থদের মধ্যে বেশ কয়েকজন শিশুও রয়েছে৷ অসুস্থদের নিয়ে তড়িঘড়ি ট্রেনটি বোকারো স্টেশনে থামলে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হয়৷ প্রাথমিক চিকিৎসার পর কয়েকজন সুস্থ হলেও, বেশ কয়েকজনের শারীরিক পরিস্থিতি তখনও ঠিক হয়নি৷

আরও পড়ুন : বৈশাখী-শোভন-সব্যসাচীকে নিয়ে বিজেপি রাজ্য সভাপতির ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য

যাত্রী পরিষেবা নিয়ে গর্বের রাজধানীতে এই ঘটনা ঘটায় রীতিমতো বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন অন্যান্য যাত্রীরা৷ বোকারো স্টেশনে রীতিমতো বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তাঁরা৷ রেলের উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের সহায়তায় তাঁদের বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে আসে৷

যাত্রীদের অভিযোগ, রাতে তাঁদের যে খাবার দেওয়া হয়েছিল, তা খাওয়ার পরেই শারীরিক অস্বস্তি শুরু হয়৷ বিশেষ করে বি থ্রি, বি ফাইভ, বি সেভেন ও বি নাইন বগিগুলির যাত্রীরা অসুস্থ হয়ে পড়েন৷ শুরু হয় পেটে ব্যাথা, বমি ও পেটখারাপ৷ বেশ কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর হয়ে পড়ে৷ তারপরেই ট্রেন থামে বোকারো স্টেশনে৷ অসুস্থদের নামিয়ে দেওয়া হয়৷ শুরু হয় চিকিৎসা৷ ট্রেনটিকে প্রায় ঘন্টাখানেক দাঁড় করিয়ে রাখা হয়৷ অসুস্থদের সেখানে রেখেই ট্রেনটি যাত্রা শুরু করে৷ রেলের তরফ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে৷

আরও পড়ুন : ত্রিপুরার বাম মডেলে রাজ্যে অরাজকতা চালাচ্ছেন দিদি: মোদী

রেলের মুখপাত্র জানিয়েছেন, অসুস্থরা এখন ভালো রয়েছেন৷ গোমো স্টেশন থেকে চিকিৎসক নিয়ে এসে পরিষেবা দেওয়া হয়৷ আইআরসিটিসির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে সংশ্লিষ্ট ট্রেনের প্যান্ট্রি কার থেকে খাবারের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে৷ খাবারের গুণগত মান খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ দোষীরা অবশ্যই শাস্তি পাবে৷