সানা: ইয়েমেনের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলে সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের বিমান হামলায় মারা গেলেন ২০ জন সাধারণ মানুষ৷

আরও পড়ুন: মৃত্যুদণ্ড দিলেই কি ধর্ষণ কমবে? অর্ডিন্যান্স প্রসঙ্গে হাইকোর্ট

প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্য উদ্ধৃত করে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, তিয়াজ প্রদেশে যাত্রীবাহী একটি গাড়িতে হামলা চালানো হয়েছিল। এতে গাড়িটির ২০ যাত্রীর সবাই নিহত হন। ছটি মরদেহ শনাক্ত করা গিয়েছে৷ বাকিদের শরীর এমনভাবে ঝলসে গেছে যে তাদের শনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না।

সৌদি জোটের এক মুখপাত্র বলেন, তারা এই ঘটনার তদন্ত করবেন। এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন তারা গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করছেন। এর বাইরে কোনো মন্তব্য করতে তিনি রাজি হননি। ইরান সমর্থিত হুতি সম্প্রদায়কে হটাতে ২০১৫ সালে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট ইয়েমেনে হস্তক্ষেপ করে। তারা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত প্রেসিডেন্ট আবদ রাব্বু মানসুর আল হাদিকে ক্ষমতায় বসাতে বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন: মেঘালয় থেকে সরল আফস্পা

দেশটির রাজধানী সানা বর্তমানে হুতিদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এর আগে, শুক্রবার হুতি বিদ্রোহীরা এক মহিলা সহ দুজনকে হত্যা ও চারজনকে আহত করেছে। ২০১৫ সালের মার্চ থেকে ইরান সমর্থিত শিয়াপন্থী হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে ইয়েমেনে ‘অপারেশন ডিসাইসিভ স্টর্ম’ নামে সামরিক অভিযান পরিচালনা শুরু করে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোট। এ অভিযানে এখন পর্যন্ত অন্তত ১০ হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন। যুদ্ধের ফলে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে রোগে মৃত্যু হয়েছে আরও ১০ হাজার মানুষের। গৃহহীন হয়েছেন কয়েক লাখ।