কাশ্মীর: জঙ্গি দমনে ভারতীয় সেনার সাফল্য৷ সেনার হাতে নিকেশ দুই জঙ্গি৷ জানা গিয়েছে নিহত দুই জঙ্গিই জইশ-ই-মহম্মদের সদস্য৷ সোপিয়ানে সেনা জঙ্গি গুলির লড়াই চলছিল৷ সেই অভিযানেই সাফল্য পায় ভারতীয় সেনাবাহিনী৷

বুধবার ভোররাত থেকেই সেনা জঙ্গি গুলির লড়াই চলে কাশ্মীরের সোপিয়ান জেলার মেমান্দার এলাকায়৷ নিয়ন্ত্রণরেখা ঘেঁসা সোপিয়ানে লুকিয়ে রয়েছে জঙ্গিরা৷ খবর পেয়েই সেখানে অভিযানে নামে ভারতীয় সেনা, সিআরপিএফ ও স্পেশাল অপরেশন গ্রুপের (এসওজি) বাহিনী৷ অভিযানের অল্প কিছুক্ষণের মধ্যেই তাদের দিকে ধেয়ে আসে গুলি৷ পালটা গুলি ছোঁড়ে নিরাপত্তা বাহিনীর জওয়ানরাও৷

আরও পড়ুন: চেয়ার বাঁচাতে আজ পার্লামেন্টে যৌথ অধিবেশনের ডাক ইমরানের

সেনাবাহিনী সূত্রে খবর, সোপিয়ানের মেমান্দার এলাকায় স্থানীয়দের বাড়ি থেকে এই হামলা চালাচ্ছে জঙ্গিরা৷ স্থানীয়দের বাড়িগুলিকেই ঢাল হিসাবে ব্যাবহার করা হচ্ছে৷ ফলে সতর্কতার সঙ্গে পালটা পদক্ষেপ করতে হয় সেনাকেও৷ সেনা সূত্রে জানা যায়, সোপিয়ানের মেমান্দারেই লুকিয়ে রয়েছে তিন জঙ্গি৷

এরপরই, লুকিয়ে থাকা জঙ্গিদের ধরতে ওই এলাকায় চিরুনি তল্লাশি শুরু করে ভারতীয় সেনাবাহিনী৷ মনে করা হচ্ছে তাতেই জঙ্গিদের কাছে থাকা গুলি, গোলা, বারুদে টান পড়ে তাদের৷ ফলে লড়াইতে এঁটে উঠতে পারেনি তারা৷ ফলে সেনার গুলিতে নিহত হয় দুই জঙ্গি৷ অপর এক জঙ্গির খোঁজেও শুরু হয়েছে তল্লাশি৷ 

মঙ্গলবার ভোররাতে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের প্রায় ৮০ কিমি ভেতরে ঢুকে এয়ার স্ট্রাইক করে ভারতীয় বায়ুসেনা বাহিনী৷ বালাকোট অঞ্চলে যুদ্ধ বিমান থেকে ফেলা হয় গোলা৷ সেই অভিযানেই গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদের ঘাঁটি৷ নিহত হয় জইশ প্রদান মাসুদ আজহারের পাঁচ নিকট সহচর সহ প্রায় ৩০০ জঙ্গি৷

এরপরই ভারতীয় বায়ু সেনার সাফল্যের খবর ছড়িয়ে পড়ে দুনিয়াজুড়ে৷ বিভিন্ন দেশ ভারতকে সমর্থন জানায়৷ পাকিস্তানের অভ্যন্তরে প্রবল আলোড়ন হয় ভারতের এই প্রত্যাঘাত ঘিরে৷ দিশেহারা ইসলামাবাদও ভারতের বিরুদ্ধে পালটা আঘাত আনার বার্তা দেয় সেদেশের সেনাকে৷  

এরপরই মঙ্গলবার রাতে রাজৌরি, পুঞ্চ এলাকায় নিয়ন্ত্রণ রেখার ওপার থেকে বোমা, গুলি ছোঁড়া হতে থাকে৷ কড়া জবাব দেয় ভারতীয় সেনাও৷ গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় পাক সেনার পাঁচটি ক্যাম্প৷ এই অভিযানে বারতীয় পাঁচ জাওয়ান আহত হয়৷ তাদের অবস্থা স্থিতিশাল বলে জানিয়েছে হাসপাতালের চিকিৎসকরা৷ 

আরও পড়ুন: ভারতের সাহসিকতার প্রশংসা বিশ্বের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে

ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী মনে করছে এয়ার স্টাইরে মুখ পুড়েছে পাকিস্তানের৷ ফলে প্রত্যাঘাতের লক্ষ্যে জঙ্গিদের সামনে রেখেই ছায়া যুদ্ধে নেছে পাক বাহিনী৷ বুধবার ভোররাতে জঙ্গিদের হামলা তারই ইঙ্গিত বলে অনুমান৷

জঙ্গিদের ধরতে সোপিয়ান সহ উপকত্যকাজুড়ে কড়া করা হয়েছে নিরাপত্তা৷ লুকিয়া থাকা তিন জঙ্গিদের খোঁজে চলে চিরুনি তল্লাশি৷ ভারতের এয়ার স্ট্রাইকের পর প্রত্যাঘাতের লক্ষ্যে এই ধরণের হামলা আপাতত জারি রাখবে পাকিস্তান৷ সামনে জঙ্গিদের রেখে পেছন থেকে পাক বাহিনীর লড়াই৷ তবে কড়া জবাব দিতে প্রস্তুত রয়েছে ভারতী সেনাবাহিনীর বীর যোদ্ধারা৷