স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক ও বহরমপুর: পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে এক যুবকের ও আহত দুই৷ ঘটনাটি ঘটেছে কোলাঘাটের ৬ নম্বর জাতীয় সড়কে৷ মৃত যুবকের নাম সমীর গোস্বামী (৩০)৷ আহতের নাম সুজয় সেনাপতি (৩৪) ও সূর্য পাত্র (৩১)৷ প্রত্যেকই দাসপুরের গোবিন্দনগর গ্রামের বাসিন্দা৷

জানা গিয়েছে, এই তিন যুবক একটি বাইক নিয়ে রবিবার দুপুরে দিঘায় বেড়াতে গিয়েছিলেন। বাড়ি ফেরার সময় জিয়াদার কাছে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে থাকা গার্ডওয়ালে ধাক্কা মারে বাইকটি। ধাক্কার জেরে রাস্তায় ছিটকে পড়েন তিন যুবকই। ঘটনাস্থানেই সমীরের মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পাঁশকুড়া থানার পুলিশ।

প্রথমে আহত অবস্থায় সুজয় ও সূর্যকে উদ্ধার করে পাঁশকুড়া সুপার স্পেশালটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর রাস্তা থেকে মৃতদেহ সরাতে গেলে পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তাঁদের অভিযোগ, গতি নিয়ন্ত্রণের জন্য রাস্তার ধারে প্রশাসনের তরফে গার্ডওয়াল দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সেটা সঠিক জায়গায় দেওয়া হয়নি। সেটা বুঝতে না পেরেই বাইক আরোহীরা তাতে ধাক্কা মারে। তার জেরেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ।

বিক্ষোভের জেরে প্রায় ঘণ্টাখানেক বন্ধ ছিল জাতীয় সড়ক। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পাঁশকুড়া থানা থেকে আরও পুলিশ পাঠানো হয় ঘটনাস্থালে। পুলিশ সূত্রে খবর, মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালানোর জন্যই ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে। চালকের মাথায় হেলমেট থাকলেও বাকি দুই আরোহীর মাথায় হেলমেট ছিল না। বাইকটিকে বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। এদিকে আহতদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে।

অন্যদিকে, একইভাবে পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল এক শিশুর৷ ঘটনাটি ঘটেছে মুর্শিদাবাদ থানার গোকুলপুর এলাকায়। নাম মারুফ সেখ (৮)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার সকালে গোকুলনগর এলাকায় বাড়ির বাইরে রাস্তা পারাপার করছিল মারুফ৷ সেই সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি মোটর ভ্যান ধাক্কা মারে শিশুটিকে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার। দুর্ঘটনাকে ঘিরে উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় মুর্শিদাবাদ থানার পুলিশ৷ তাঁরা গিয়েই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয় লালবাগ মহকুমা হাসপাতালে।